পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৩৯৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


NOCR o শিবনাথ শাস্ত্রীর আত্মচারিত [ ১৬শ পরিঃ ታ ইনস্পেক্শন বাঙ্গল, সেখানে এক জন আসামী চাকর আছে। তার একটি পানীয় জলের কলস দেখিলাম ; তার মুখে একটি বাট চাপা। তার নিকট জল চাহিলাম। তার পর যে কথাবাৰ্ত্ত হইল, তাহা এই। ভৃত্য। কিসে ক’রে খাবে ? উত্তর । কেন ? তোমার ঐ বাটিতে ক’রে দাও । “কলা বঙ্গাল’ ; আমাদের জলপাত্ৰ তোমাদের ছুতে দি না । উত্তর । আচ্ছা, আমরা হাতে অঞ্জলি ক’রে হাত পাতিছি, তাতে জল sts, G. S ভূত্য । হাতে ও বাটিতে যদি ঠেকাঠেকি হ’য়ে যায় ? ইতিমধ্যে দ্বারি বাবু গাছের পাতা ছিাড়িয়া আনিতে গেলেন। বলিয়া গেলেন, “আচ্ছা, আমি গাছের পাতা আনছি, তার বাটি ক’রে তাতে জল দিবে।’ তঁহার ফিরিতে কিছু বিলম্ব হইতে লাগিল। ইতিমধ্যে আমি সেই ব্যক্তির কাছে ব্ৰাহ্মধৰ্ম্ম প্রচার করিতে প্ৰবৃত্ত হইলাম। বলিলাম, “তোমার কি লজ্জা হচ্ছে না ? যে ঈশ্বর তোমাকে সৃষ্টি করেছেন, তিনি আমাদিগকেও সৃষ্টি করেছেন। বলতে গেলে তুমি আমাদের ভাই। আজ এই বিপদের দিন, জলাভাবে প্ৰাণ যায়, তোমার জল আছে অথচ তুমি দিতে পারছি না। ভগবান যে জল সকলের জন্য দিয়েছেন, তাই একটু তুমি আমাদের জন্য দিতে পারলে না, কি লজ্জার কথা ।” কেন জানি না, আমার কথা শেষ হইলে সে ব্যক্তি ধীর ভাবে বলিল, “আচ্ছা, আমার বাটিতে জল খাও।” তখন আমি দ্বারি বাবুকে চীৎকার করিয়া ডাকিলাম, ‘আসুন, আসুন ! আমি একে ব্ৰাহ্ম করেছি, বাটতে জল দিতে রাজি হয়েছে।” দুজনে কত হাসিলাম, তার বাটিতে পেট ভরিয়া জল পান করিলাম ।