পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৪৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


•78१-४७] 衍引市希 ফল বা ফুল পাইলে তাহার জন্য আনিতাম ; সে সঙ্গিনী না হইলে খাইতে বসিতাম না ; এবং তাহাকে ফেলিয়া এক শয্যাতে যাইতে পারিতাম না । মা সন্ধ্যার পূৰ্ব্বে আমাদের দুই ভাই বােনকে খাওয়াইয়া দিতেন ; আমরা দুজনে গিয়া শয়ন করিতাম। আমার কল্পনাশক্তি শৈশব হইতেই প্রবল, কত যে গল্প বানাইয়া উন্মাদিনীকে শুনাইতাম, এখন মনে হইলে হাসি পায়। গল্প শুনিতে শুনিতে আমার গায়ে হাত দিয়া সে ঘুমাইয়া পড়িত, আমিওঁ शूमांश्च श्रख़्डिाभ। “চিন্তা”। দাসী ।—১৮৩৩ সালের সাইক্লোনে সমুদ্রতরঙ্গ উঠিয়া সুন্দরবনের অভ্যন্তরবত্তী প্ৰদেশ সকলকে প্লাবিত করে। সেই প্লাবনে যখন গরীব লোকের কুঁড়েঘর ভাসিয়া যায়, তখন হাজার হাজার পুরুষ ও রমণী জলমগ্ন হইয়া, প্রাণত্যাগ করে। কেহ কেহ নিজ নিজ ঘরের চালের উপরে আশ্ৰয় লইয়া প্লাবনের সঙ্গে সঙ্গে উত্তর বিভাগে ভাসিয়া আসে। এইরূপে অনেক পুরুষ ও নারী ভাসিয়া আসিয়া আমাদের গ্রামে আশ্রয় লইয়াছিল। তৎপরেই তাহারা বিষম কলেরা রোগে প্ৰাণত্যাগ করে। এই কলেরার মহামারীতে আমার প্রপিতামহী পিতামহ ও পিতামহীর মৃত্যু হয়, তাহ পূর্বেই বলিয়াছি। যে সকল লোক ভাসিয়া আসিয়াছিল, তাহাদের মধ্যে ‘চিন্তা’ নামে এক নিম্নশ্রেণীর স্ত্রীলোক আসিয়া আমাদের বাড়ীতে শরণাপন্ন হয়। আমার পিতামহ দয়াপরবশ হইয়া তাহাকে বাড়ীতে স্থান দেন ; তৎপরেই তঁাহারা বিষম কলেরা রোগে প্ৰাণত্যাগ করেন। চিন্তা আমাদের বাড়ীতে থাকিয়া যায়, এবং আমার বড় পিসীর পরিচারিকা হয়। আমার বড় পিসীর ছেলে মেয়েরা মাতার গর্ভ হইতে চিন্তা দাসীর ক্ৰোড়েই পড়িয়াছেন, ও তাহার ক্ৰোড়েই প্রতিপালিত, হইয়াছেন। আমিও মাতুলালয় হইতে আসিয়া চিন্তার ক্ৰোড়ে আশ্রয় পাই। আমার জ্ঞানের সঞ্চার হইলে দেখিতাম যে চিন্তাই আমাদের হত্রী কত্রী। আমরা তাহাকে দাসী বলিয়া মনে করিতাম না, চিন্তা