পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৪৯৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


83r ' ' ' त्रिन्थ भांबा खांशू5झेिऊ [ ২২শ পরিঃ করিতে লাগিলাম, ইহাদিগকে বেথুন স্কুল প্রভৃতি বিদ্যালয়ে না পাঠাইয়া এদের জন্য একটি ছোট স্কুল করা যাক। স্কুলটি তিন ঘণ্টা বসিবে, এবং কিণ্ডারগাটেনের অনুরূপ প্ৰণালীতে তাহাদিগকে শিক্ষা দেওয়া হইবে। এই ভাবিয়া প্ৰথমে কতকগুলি শিশু সংগ্ৰহ করিয়া পড়াইতে আরম্ভ করা গেল। স্কুলটিতে বালিকাই অধিক জুটিল, সঙ্গে শিশু বালকও “থাকিত । নাম রাখা গেল ব্ৰাহ্ম বালিকা শিক্ষালয় । আমি নিজে সর্বনিম্ন শ্রেণীতে বোর্ডের সাহায্যে ছবি আঁকিয়া পড়াইয়া দেখাই তাম, কেমন করিয়া পড়াইতে হয়। সে সময়কার কোন কোন শিক্ষক সেই সময় হইতে শিশু শিক্ষার একটা নুতন ভাব পাইলেন, এবং উত্তর কালে কিণ্ডারগাটেন শিক্ষক হইয়া উঠিলেন। ক্রমে এই শিক্ষালয়টি বড় হইয়া উঠিল। ইহাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহিত যুক্ত করিবার ইচ্ছা আমার ছিল না। আমি ইহাতে নূতন প্ৰণালীতে শিক্ষা দিবার ইচ্ছা করিয়াছিলাম, এবং তদনুরূপ আয়োজন করিতেছিলাম। কিন্তু সমাজের সভাগণ ইহাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহিত যুক্ত করিয়া ফেলিলেন, এবং শ্রদ্ধেয় গুরুচরণ মহলানবিশের প্রতিষ্ঠিত বালিকা বোর্ডিংকে ইহার সহিত যুক্ত করিয়া ইহাকে এক প্রসিদ্ধ বালিকা বাের্ডিং স্কুল করিয়া তুলিলেন। পরে আমি ইহার সহিত সাক্ষাৎ সংশ্রব ত্যাগ করিলাম । নবীনচন্দ্র রায়ের মৃত্যু।–১৮৯০ সালের আগষ্ট মাসে একটি শোচনীয় ঘটনা ঘটে। আমার শ্রদ্ধাস্পদ বন্ধু নবীনচন্দ্র রায় কলিকাতাতে একটি বাস ভবন নিৰ্ম্মাণ কাৰ্য্য শেষ করিবার জন্য আমার ভবনে আসিয়া বাস করেন। ঐ কাৰ্য্যের তত্ত্বাবধানের জন্য তঁহাকে গুরুতর শ্রম করিতে হয়। তদ্ভিন্ন তঁহার চিরদিন উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বাসের অভ্যাস ছিল, তাহার আহারাদির নিয়ম স্বতন্ত্র ছিল, তাহা আমাদের ভবনের নারীগণ জানিতেন না ; নবীন বাবুও স্বাভাবিক হীশীলতাবশতঃ জিজ্ঞাসা করিলেও