পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৫০৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Bino শিবনাথ শাস্ত্রীয় মাত্মচারিত ['২৩শে পরিঃ অনেকে ব্ৰাহ্মধৰ্ম্ম প্রচারে ও ব্রাহ্মসমাজের সেবাতে আত্মসমৰ্পণ কলিয়াছেন। তঁহাদের মধ্যে হইতে চারি জনকে এ পৰ্য্যন্ত সাধারণ ব্ৰাহ্মসমাজ "আপনাদের প্রচারক পদে বরণ করিয়াছেন। আর একটি স্মরণীয় ঘটনা, এক বার আমি সাধনাশ্রমের কার্য্যভার আশ্রমের এক জন পরিচারকের প্রতি দিয়া ধৰ্ম্ম প্রচারার্থ লাহোরে গিয়াছিলাম। সেখানে সংবাদ পাইলাম, আশ্রমে মহা অর্থকষ্ট উপস্থিত, দিনে ২৩ আন মাত্র বাজার হইতেছে। যে রবিবার প্রাতে এই সংবাদ পাইলাম, সেই দিন তথাকার এক ব্ৰাহ্ম বন্ধুর ভবনে আহারের নিমন্ত্রণ ছিল। আহার করিতে যাইবার সময় সঙ্গের একটি ব্ৰাহ্ম বন্ধুকে বলিলাম, ‘আজ আমার নিমন্ত্রণ খেতে উৎসাহ হচ্ছে না । কলিকাতার আশ্রমে র্যারা আছেন, তঁাদের বাজারের পয়সা নাই, আর আমি এখানে নিমন্ত্রণ খেয়ে বেড়াচ্ছি, এ ভাল লাগছে না। কিন্তু কি করি, কথা দিয়েছি, না গেলে নয়।” এই বলিয়া কোন প্রকারে গিয়া আহার করিয়া আসিলাম । সায়ংকালে লাহোর মন্দিরে উপাসনার। কাৰ্য্য আমাকে করিতে হইল। উপাসনান্তে আমি বেদী হইতে নামিয়াছি, এমন সময় এক জন আসিয়া আমাকে বলিলেন যে, একটি পাঞ্জাবী বড় ঘরের মেয়ে আমার সঙ্গে সাক্ষাৎ করিবার জন্য মন্দিরের পশ্চাতের ঘরে অপেক্ষা করিতেছেন । আমি গিয়া দেখি, তিনি এক জন বড়লোকের পুত্রবধু; তঁাহার পতি কিছু দিন। পূর্ব হইতে ব্ৰাহ্মসমাজের দিকে আকৃষ্ট হইয়াছেন। তিনি আমাকে দেখিবামাত্র স্বীয় আসন হইতে উঠিয়া গলযান্ত্রে আমার চরণে প্ৰণত হইলেন, এবং আমার:পায়ে এক শত টাকার নোট রাখিয়া বলিলেন, “আপনার স্থাপিত আশ্রমেয় সাহায্যার্থে দান।” তৎপর দিনই সেই টাকা কাৰ্য্যাধ্যক্ষেয় নিকট প্রেরণ করিলাম। জাহ্ম বালক বোর্ডিং -এই কালের মধ্যে আর একটা কাজে হাত দেওয়া গিয়াছিল, তাহাতে-কৃতকাৰ্য্য হইতে পারা যায় নাই। যে সময়ে