পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৫৬৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


te শিবনাথ শাস্ত্রীর আত্মচারিত পরিশিষ্ট করিতে চেষ্টা করিতেছে, তখন আর তার নাম সহ করিতে পারিতেন না। বলিতেন, “ও কাপুরুষের নাম আমার নিকট করিও না” ; বলিয়া ক্ৰোধাভরে সে স্থান ত্যাগ করিতেন । এই সকল গুণে প্ৰসন্নময়ী সকলের প্রীতি ও শ্রদ্ধা আকর্ষণ করিয়াছিলেন। তঁহার মৃত্যুতে কেবল আমার সন্তানেরাই যে মা-হারা হইয়াছিল তাহা নহে ; তাহার জন্য অনেকের চক্ষে জল পড়িয়াছিল। আমি বহু বৎসর পূর্বে ঈশ্বর চরণে নিবেদন করিয়াছিলাম,- “ আমি বড় দুঃখী তাতে দুঃখ নাই ; পরে সুখী ক’রে সুখী হ’তে চাই। নিজে ত কঁাদিব, কিন্তু মুছাইব অপরের আঁখি, এই ভিক্ষা চাই। " ऊJ -चन् भानि চাহে না এ প্ৰাণ ; যদি কাজে আসি তবে বেঁচে যাই । বহু কষ্ট পূর্ণ আমার অন্তর, এই আশীৰ্ব্বাদ কর, হে ঈশ্বর,- খাটিতে বঁচিব, খাটিয়া মরিবি, এই বড় আশা ; পূর্ণ কর তাই।” তখন আমি যে ছবি আদর্শে রাখিয়াছিলাম, প্ৰসন্নময়ী তাহা জীবনে পরিণত করিয়া দেখাইয়া গিয়াছেন। তিনি সংসারের শত কষ্ট ও অশান্তির মধ্যে পরকে সুখী করিয়া সুখী হইয়াছেন, নিজে কঁাদিয়া অপরের অশ্রু মুছইয়াছেন, এবং অনলস শ্রমশীল ও কর্তব্যপরায়ণ জীবন যাপন করিয়া গিয়াছেন। যথার্থই তিনি খাটিতে বাচিয়াছেন ও খাটিয়া মরিয়াছেন।