পাতা:আত্মচরিত (৩য় সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৮০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শিবনাথ শাস্ত্রীর আত্মচারিত [ ৩য় পরিঃ প্ৰশংসা শুনিতাম । তিনি আমাদিগকে বড় ভালবাসিতেন ; আমরা খেলা করিতেছি দেখিলে তিনি সুখী হইতেন । কলেজে দাঙ্গা ও সত্য কখা বলতে কাউয়েল সাহেবের সন্তোষ ।—তাহার বিষয়ে এই সময়ের একটি ঘটনা মনে আছে। এক দিন আমাদের ক্লাসের ছোকরার একটা ছোট কাঠের সিড়ী লইয়া আর এক ক্লাসের ছেলেদের সঙ্গে একটার ছুটির সময় ভয়ানক দাঙ্গা করিল। আমি তখন খেলিতেছিলাম। আমাকে ক্লাসের ছেলেরা দাঙ্গার জন্য ধরিয়া আনিল । যে কয় জন বালক সিড়িী লইয়া টানাটানি করিয়াছিল। আমি তাহদের মধ্যে এক জন ছিলাম ; সুতরাং কীল দেওয়া অপেক্ষা কীল খাওয়া আমার ভাগ্যে অধিক ঘটিয়াছিল। ছুটির পর স্কুল আবার বসিলে এ বিষয়ের তদন্ত আরম্ভ হইল। কাউয়েল সাহেব বড় বাড়ী হইতে তদন্ত করিতে আসিলেন। তিনি যখন ক্লাসের মধ্যে দাড়াইয়া ধীর গম্ভীর স্বরে বলিলেন, “কে কে দাঙ্গাতে ছিলে উঠিয়া দাড়াও,” তখন তঁহার সেই সাধুতাপূর্ণ মুখের দিকে চাহিয়া আমি যেন আর না দাড়াইয়া থাকিতে পারি না ; কে যেন ঠেলা দিতে লাগিল । কিন্তু চারি দিকে চাহিয়া দেখিলাম, ক্লাসের আর কোনও ছেলে উঠে না ; ইতস্ততঃ করিতে লাগিলাম। অবশেষে সাহেব বলিলেন, “তবে কি আমি বুঝিব, তোমরা কেহ দাঙ্গাতে যাও নাই ? যে যে গিয়াছ উঠিয়া দাড়াও।” আমি আর না দাড়াইয়া থাকিতে পারিলাম না ; উঠিয়া দাড়াইলাম। সাহেব বলিলেন, “তুমি কি এক দাঙ্গাতে গিয়াছ ?” আমি বলিলাম, “ক্লাসের সকলেই গিয়াছিল।” ইহার পর সাহেব ক্লাসগুদ্ধ বালকের ২২ দুই টাকা করিয়া জরিমানা করিলেন ; এবং আমাকে তঁহার গাড়ীতে তুলিয়া বড় বাড়ীতে র্তার ঘরে লইয়া গিয়া বলিলেন, “তুমি সত্য বলিয়াছ বলিয়া মার্জনা করিলাম, কিন্তু দাঙ্গাতে গিয়া ভাল কর নাই।” আরও অনেক সদুপদেশ দিলেন। তিনি যখন আমার মাথায় হাত দিয়া বলিলেন,