পাতা:আত্মচরিত (৪র্থ সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/২৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


SRyo শিবনাথ শাস্ত্রীব আত্মচারিত [ ১০ম পরিঃ তাকে একেবারে নরকে, দিবেন। শিশিরবাবুদের প্রতি বােধ হয় কোন কারণে বিরক্ত হইয়াছেন, আর ওঁদের নামও সহিতে পারেন না। কি আশ্চৰ্য্য বিদ্যাসাগর মহাশয়ের মানব-প্ৰকৃতির অভিজ্ঞতা ! কি আশ্চৰ্য্য ভবিষ্যদর্শনের শক্তিী তিনি যাহা বলিয়াছিলেন, তাহাই ঘটিল। একটা সতী ! স্থাপন করা স্থির হইলেই, আনন্দমোহন বাবুর মুখে শুনিলাম, শিশির বাবুর দল জিজ্ঞাসা করিতে লাগিলেন, “এই সভার সম্পাদক হবেন কে ?” মনোমোহন বাবু, সুরেন্দ্ৰ বাবু, আনন্দমোহন বাবু সে বিষয়ে মনোযোগই দেন না। তঁাতারা বলেন, সে পরে স্থির হবে, র্যাকে সকলে মনোনীত করিবেন, তিনিই হবেন। “ভারত -সভা” স্থাপনের বিজ্ঞাপন বাহির হইল। সে বিজ্ঞাপন বাহির হওয়ার দুই এক দিন পরে সংবাদপত্রে হঠাৎ বিজ্ঞাপন দেখা গেল যে, “ইণ্ডিয়ান-লীগ” নামে মধ্যবিত্তাদিগের জন্য একটী রাজনৈতিক সভা স্থাপন করিবার জন্য এক সভা হইবে। অনুসন্ধানে জানা গেল যে, সুপ্ৰসিদ্ধা খৃষ্টীয় আচাৰ্য্য কৃষ্ণমোহন বন্দ্যোপাধ্যায় মহাশয়কে সভাপতি ও শিশিরকুমার ঘোষ মহাশয়কে সম্পাদক করিয়া ঐ সভা স্থাপিত হইতেছে । আমরা একেবারে গাছ হইতে পড়িয়া গেলাম ; কারণ শিশির আদি হইতে আমাদের পরামর্শের মধ্যেই ছিলেন । ভারত-সভার জন্ম -কিন্তু আমবা ভারত-সভা স্থাপনের সংকল্প ত্যাগ করিলাম না । ইণ্ডিয়ান-লীগ অগ্ৰে হইল, কি ভারত-সভা অগ্ৰে স্থাপিত হইল, মনে নাই। এই মাত্ৰ মনে আছে, এলবাৰ্ট হলে প্ৰকাত্য সভা করিয়া ভারত-সভা স্থাপন করা গেল, এবং আমন্দমোহন । বাবুকে তাহার সম্পাদক করা গেল। আর সেদিনকার কথা এই, মনে আছে যে সেদিন সুরেন বাবুর একটী পুত্রসন্তান মারা যায়, তিনিতৎসত্বেও আসিয়া সভা স্থাপনে সাহায্য করিলেন। আনন্দমোহন বাবু