পাতা:আত্মচরিত (৪র্থ সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৭৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


শিবনাথ শান্ত্রিীব আত্মচবিত [ ৩য় পবিঃ }লইয়া পাড়াব বালকদিগের সঙ্গে সুখেই ছিলাম, আমাকে ধবিয়া লইয়া গেল বিবাহ দিতে । আমাব ভাবনা হইল, বাবাকে দেখে কে ? মাব উপবে বিশ্বাস হইল না, কাবণ মা তখন কুকুব ভালবাসিতেন না। কাজেই পাড়াব বালকদিগেব। প্রতি তাব ভাব দিয়া আসিয়াছিলাম। তাহাবাই তাহাকে কয়েকদিন খাওষাই যাছিল ও দেখিয়াছিল। তাই আসিয়া সংবাদ দিল, “বাবা ভাল আছে ।” ক্রমে পালকা বাড়ীতে উপস্থিত হইল। পাড়াব মেযেবা বীে দেখিতে আসিল। মা হুলু দিযা, ধানদুৰ্ব্বা ফুল চন্দন ঠাকুবেব চবণামৃত প্ৰভৃতি দিয়া, বীে ঘবে তুলিলেন । আমি পান্ধী হইতে নামিষাই তাডা তাড়ি রবাকে দেখিতে ছুটিলাম। বড় পিসী “ওৰো খা, ওবে খা” কবিষ, পশ্চাতে ছুটিলেন। কে বা মিষ্ট পাষ, কে বা বেী লইষা মেযেদেব মধ্যে বসে। তখন বাবা প্ৰসন্নময়ী অপেক্ষা বহুগুণে অমাব প্ৰিয । এখন এইসব স্মবাণ হটয়া হাসি পায়। পিতার হাতে দারুণ প্ৰহাের ।-বিবাহ-উৎসব শেষ হইতে না হইতে একটী ঘটনা ঘটিল,ব্যাহাব স্মৃতি অদ্যাপি জগন্ধক বহিয়াছে। আমাব বিবাহোম কয়েকদিন পবেই আমাব জ্ঞাতিসম্পর্কে এক জ্যাঠাব এক কন্যাবর্ণমার্চ উপস্থিত হইল। তখনও প্ৰসন্নমস আমাদেব বাড়ীতে ফেয়ার্ডশাপৰ বাড়ী ফিবিয়া যান নাই , এবং তাহাব পিত্ৰালয় হইতে র্যাহাবা সঙ্গে আসিয়াছিলেন, তঁহাদেবও কেহ কেহ তখনও আছেন। আমার ঐ জ্যাঠতুতো বোনেব বিবাহ উপস্থিত হইলে, একদিন আমাদেব পাড়াব ছেলেবা বরযাত্রদিগেব সহিত কৌতুক কবিবােব জন্য পঞ্চবর্ণেব গুড়া দিয়া আসন প্ৰস্তুত কবিতে প্ৰবৃত্ত হইল। আমিও তাহাদেব মধ্যে ছিলাম। সেখানে আমোদ প্ৰমোদ कविड কবিতে আমাৰ বড় পিসীব মেজো ছেলে বামযাদব চক্ৰবৰ্ত্তীর সহিত আমার হঠাৎ বিবাদ বাধিয়া গেল। দুইজনে জড়াজড়ি ঠেলা ঠেলি ও ঘুষাঙ্গুষি করিতে আরম্ভ