পাতা:আত্মচরিত (৪র্থ সংস্করণ) - শিবনাথ শাস্ত্রী.pdf/৮৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


yr o শিবনাথ শাস্ত্রীব আত্মচবিত [ ৩য় পবিঃ তন্মানসূচিত্তে পড়িতে বসিলে বাবা আমাকে ডাকিষা ডাকিয়া উত্তব না। পাইয়া আসিয়া প্ৰহাৰ কবিতেন, এবং আমাব হা-কাল নাম বাখিয়াছিলেন, তাহা অগ্ৰেই বলিষাছি । এই মাতৃলেব বাসায় থাকিবাব সময় একদিন আমি বাডীৰ ভিতবেব টপণেব ঘবে তন্মনস্কচিত্তে পাঠে মগ্ন আছি, এমন সমযে বডমামা শয়ন কৰিবাব জন্য উপবে আসিতেছেন। ৭ আমি তন্মনস্কচিত্তে পড়িতে বসিলেই কোমবোৰ কাপড় খলিমা যাইত । সেইৰূপ কাপড খুলিয়া পড়িষাছে, আমি পাঠে মগ্ন আছি । বডমামাব জুতাৰ ঠকঠক শব্দ শুনিতেছি, কিন্তু চেতনা তইতেছে না, কাপড় সামলাইমা পলিতেছি না। অবশেষে বড়মামা যখন সেই-ঘবেব দ্বাবে আসিয়া উপস্থিত হইলেন, তখন আমি সজাগ হইষা কোমবোৰ কাপড সামলাইতে প্ৰবৃত্ত হইলাম। লন্ডমামা বলিলেন, “তুই কি ঘুমুচ্ছিলি ? বসে ঘুমুচ্ছিলি কেন, শুতে তো পাবতিস ?” আমি বলিলাম “না, ঘুমুই নি।” তিনি জিজ্ঞাসা কবিলেন, “অমন থাড়ি-মাডি দিয়ে উঠলি কেন ?” আমি বুলিলাম, “আমি মনে কবলম চু চো আসছে।” তিনি হাসিয়া বলিলেন, “ছু চো কি জুতে-পাশে সিঁড়িা দিয়ে আসে ?” এই লঈযা বাড়ীব লোকোব মধ্যে হাসাহ।াসি পড়িয়া গেল । অবশেষে বড়মামা অমাব পাঠে মনোযো ও চিত্তেব একাগ্ৰতাব জন্য সন্তোষ প্ৰকাশ কবিলেন । মাতুলের ছাপাখানা ও বাসা উঠিয়া যাওয়াতে নানাস্থানে বাস ও কষ্যভোগ ।-ইহাব কিছুদিন পবেই মাতলা বেলওয়ে পুলিল। বড়মামা ডেলি প্যাসেঞ্জাব হইয়া বাড়ী ক্রইতে কলেজে গীতায়াত কবিতে লাগিলেন । সোমপ্ৰকাশ যন্ত্র কলিকাতা হইতে চাঙ্গড়িপোতা গ্রামে তাহাব বাসভবনে উঠিয়া গেল। আমাদেব বাসা আবাব ভাঙ্গিল । আমি দুদিন ইহাদেব সঙ্গে, দুদিন উহাদেব সঙ্গে, এইৰূপ কবিয়া ভাসিয়া বেড়াইতে লাগিলাম। শেষে আমাৰ পিতা আসিয়া আমাকে সুকিয়া ষ্টীটে বাদুড়বাগানে এক আত্মীয়েব বাসাতে বাখিয়া গেলেন । তিনি আমার মাতাব