পাতা:আত্মজীবনী ও স্মৃতি-তর্পন - জলধর সেন.pdf/১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अांकृऔदनौ ७ डि-ऊo6ि চোখের তারকা ঢেকে ফেলত দৃষ্টিশক্তির লোপ হয়ে যেত। আবার শীত পড়তে না পড়তেই সে পর্যাদাটা স’রে যেত, আমারও দৃষ্টিশক্তি ফিরে আসত। স্বতরাং আমি সে সময়ে ৬ মাস অন্ধ, ৬ মাস চক্ষুন্মান। সে জন্যে আমার লেখাপড়াও আধাআধি মত হ’ত । বাঙ্গলা স্কুলে আমি বাঙ্গলা সাহিত্যে খুব কৃতী হয়ে উঠলুম। অবশ্য সেটা আমার নিজের গুণে যত না হউক, কাঙ্গাল হরিনাথের আশীর্বাদে আর তার শিক্ষার গুণে । আমি যখন বাঙ্গালা স্কুলে প্রথম ভর্তি হই, সেই সময়েই হরিনাথ তঁার প্রাণাধিক প্রিয় বঙ্গবিদ্যালয়ের ভার তার ক্লতী ছাত্র পুলিনচন্দ্ৰ সিংহের ওপর দিয়ে, আমাদের গ্রামে বালিকাবিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করবার ভার নিয়েছিলেন এবং সেই বিদ্যালয়েরই শিক্ষকতা কাৰ্য গ্ৰহণ করেছিলেন । সেসব কথা পরে বিশেষ কবে? বলতে হবে ; কাবণ আমার ক্ষুদ্র নগণ্য জীবনের কথা, কাঙ্গাল হরিনাথের জীবন-কথার সঙ্গে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। সুতরাং তার বিস্তৃত বিবরণ প্রয়োজন । আমার বাঙ্গলা পিন্দ্যালয়ের বৎসরের ছ’মাসের শিক্ষার সংক্ষিপ্তসার এই যে, আমি সে সময়ে দ্বিতীয় শ্রেণীতে অধ্যয়ন করলেও, বাঙ্গলা সাহিত্য সম্বন্ধে শুধু বাঙ্গলা স্কুল কেন, ইংরাজী স্কুলের ছাত্ৰগণেব ও অগ্রগণ্য DD S DD DSDD DBGrSuD DYBBDSS S SBD BBD DDD BY BD গ্রামের স্কুলে কেন, গ্রামেব সীমানার মধ্যে ছিল কিনা সন্দেহ । ঐ ক্ষেত্রতত্ত্ব আর পাটীগণিত, এই দুটো কিছুতেই আমাব মাথাব্য মধ্যে প্রবেশ কর ন্য না, অথচ সে সময়ে সকলেই বলতেন যে, আমাব দেহের গঠনের অনুপাতে মাথাটা নাকি বড় ছিল । সে মাথার ভেতর বোধ হয় বাঙ্গার্লা সাহিত্যই সবখানি জায়গা জুড়ে বসেছিল। আব্ব তার জোবেই এস্পবাব যখন স্কুলসমূহের ইনস্পেক্টর পূজ্যপাদ ৬/ভূদেব মুখোপাধ্যায় মহাশয় আমাদেব স্কুল পরিদর্শন করতে যান, সে সময়ে কি যেন কি একটা করুণ রসাত্মক আবৃত্তি ক’রে তঁার চোখের জল টেনে বার করেছিলুম, আর তঁর কাছ থেকে তিনখানা বাঙ্গলা বই তখনই -পুরস্কার আদায় করেছিলুম।” এই চাপরাসের জোরে, আর কাঙ্গাল হরিনাথের আদরে আমি প্ৰতি বছরে ক্লাস প্রমোশন পেশাম । কিন্তু কোনবারও অঙ্কের পরীক্ষায় ১০, ৪ নম্বরের মধ্যে ৫ নম্বর পেয়েছি। কিনা, সন্দেহ । আর এখন হয়ত দাগ মিলিয়ে যেতে পারে, কিন্তু সে সময়ে আমাদের দ্বিতীয় পণ্ডিত ব্ৰাহ্মণপ্রবর কেদারনাথ জোয়ারদার মহাশয়ের এমন দিন যায় নি, যেদিন qMEiB BBuBD DD BDDuB BBD BBS BDD L DuDBD DLDDD