পাতা:আত্মজীবনী ও স্মৃতি-তর্পন - জলধর সেন.pdf/২০৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अiजूछौवनी 8 ऊि-ऊ*१ J st এই প্রসঙ্গ শেষ করবার পূর্বে আরও দুই একটী কথা বলে আমার বক্তব্য 6अंश कtऊ bाशे । “সুলভ সমাচার’-এর চাকরি তো গেল । তারপর কি করা যায় ! সার্টিফিকেটঅব-অনার ধুয়ে জল খেলে তো পেট ভরবে না ! “সুলভ-সমাচার’ উঠে যাওয়ার সংবাদ পেয়েই আমার পরম হিতৈষী বন্ধু আমার পূর্ব মনিব সন্তোষেব কবিজমিদার শ্ৰীযুক্ত প্রমথনাথ রায়চৌধুৰী মহাশয় আমাকে ডেকে পাঠালেন এবং যতদিন আর কোন সুবিধা না হয় ততদিন তঁর প্যারাগন প্রেসের ভার নিতে বললেন। এখন যেখানে আমাদের ভারতবর্ষ আফিস হয়েছে পূর্বে সেখানে ট্রাম কোম্পানীর আস্তাবল ছিল। সেই আস্তাবলের ঘরগুলি ভাড়া নিয়ে প্রমথবাবু প্যারাগন প্রেস করেছিলেন। আমি সেই প্রেসের ম্যানেজাব হলাম । তখন, “ভারতবর্ষ’ প্রচারের বিপুল আয়োজন চলছে। কবিবর দ্বিজেন্দ্রলাল রায় ও পণ্ডিত অমূল্যচরণ বিদ্যাভূষণ যুগ্ম-সম্পাদক হয়েছেন। সেই সময়ে ভারতবর্ষের স্বত্বাধিকারী শ্ৰীমান হরিদাস চট্টোপাধ্যায় মহাশয় আমাকে বললেন যে তিনি প্যারাগান-প্রেসেই “ভারতবর্ষ’ ছাপতে চান। আমার আর তাতে আপত্তি কি ! অত বড় একখানি বাগজ ছাপাবার জন্য যা কিছু ব্যবস্থা করতে হয় আমি তাই করতে লাগলাম। হরিদাসবাবু কিছু টাকা অগ্রিমও দিলেন। তখন ‘ভারতবর্ষে’র সঙ্গে আমার ঐ টুকুই সম্বন্ধ ছিল। আমি চার পাচ ফর্মার মত কম্পোজ তুলে দিলাম। প্রথম ফর্মার পেজ, সাজিয়ে যেদিন দ্বিজেন্দ্রলালের বাড়ীতে পাঠিয়ে দিলাম, সেই দিনই সেই ফর্মার প্রাফ দেখতে দেখতেই অকস্মাৎ দ্বিজেন্দ্রলাল অমরধামে চলে গেলেন। তখন চারিদিকে হৈ হৈ পড়ে গেল। ‘ভারতবর্ষের কর্মকর্তাগণ কি করবেন। স্থির করতে পারলেন না। অনেকের নাম প্ৰস্তাবিত হ’ল। অবশেষে হরিদাসবাবু আমাকেই দ্বিজেন্দ্রলালের শূন্যপদে জোর করে বসিয়ে দিলেন। আমি এ সৌভাগ্যের আশাও করিনি এবং এজন্য কোন চেষ্টাও করিনি। প্ৰথম বৎসর পণ্ডিত অমূল্যচরণ বিদ্যাভূষণ আমার সহযোগী ছিলেন। দ্বিতীয় বর্ষের আরম্ভে তিনি চলে গেলে, “বঙ্গনিবাসী'র সম্পাদক শ্ৰীযুক্ত উপেন্দ্ৰীকৃষ্ণ বন্দ্যোপাধ্যায় আমার সহযোগী হলেন। তৃতীয় বৎসরে তিনিও চলে গেলেন । BB BBD BB DBDDBDB D BBDD SDuDDD DB DBB BDuDSS