পাতা:আত্মজীবনী ও স্মৃতি-তর্পন - জলধর সেন.pdf/৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আত্মজীবনী ও স্মৃতি-তৰ্পণ 2 \ο আমার পড়ার খরচ চালাবেন এবং নিজেও ঘরে পড়াশুনা করে” মোক্তারী পরীক্ষা দিবেন। পিতৃহীন একমাত্র কনিষ্ঠ ভ্রাতার এ প্ৰস্তাব আমি গ্ৰহণ করতে পারি। DYiB BB BDDB DuJSL SDD DDBD DDB BDB BBB BDBB DDD আমাদের সংসারের কর্তা, আমাদের বড় দাদা শশধরের এই প্ৰস্তাব অনুমোদন BB S BD S DDD DB BBDB S BBB DDDD DBDu BDDB कीछिलाभ । YBD DBDDD SDDDBDB BB DDDBS EEBB BBDS পরে হেড ক্লার্ক হন। তিনি চেষ্টা করে” আমাকে গোয়ালন্দ স্কুলের তৃতীয় শিক্ষক-পদে নিযুক্ত করিয়ে দিলেন। বেতন হ’ল নগদ চব্বিশ টাকা, পনির আনা-অৰ্থাৎ বেতন পাঁচশ টাকাই হ’ল, তার থেকে মাইনে প্ৰাপ্তির রসিদষ্টাম্পের দাম এক আনা কেটে নিয়ে স্কুলের কর্তারা আমাকে চব্বিশ টাকা, পািনর আনা দিতেন। কলেজে পড়বার সময়ে সুপ্ৰসিদ্ধ বাগী সুরেন্দ্ৰনাথ ও কালীচরণের বক্তৃতা শুনে, স্বদেশের জন্য জীবন উৎসর্গ করব, ম্যাট সিনিগারিবল্ডি হব, দেশের মধ্যে দশজনের একজন হব বুলে’ আকাশে যে বাড়ী তৈরী করতাম, এক আঘাতে তা চূৰ্ণ হয়ে গেল-ভবিষ্যৎ দেশ-সেবার স্বপ্ন ভেঙ্গে গেল-বিধাতার বিধানে আমি হলাম। এক গ্রামের স্কুলের পচিশ টাকা বেতনের থার্ড মাষ্টার। কি করব।-ঐ কয়টি টাকা না হ’লে যে আমার ছোট ভাইয়ের কলেজে পড়া বন্ধ হয় ! তাই, আমি ঐ ready-made চাকুরী নিতে বাধ্য হয়েছিলাম-অপেক্ষা করবার আমার সময় ছিল না । আর এই মাষ্টারী চাকুরীটি বেশ ! ও কাজের জন্য কোন প্রকার আয়োজন করতে হয় না, শিক্ষা গ্ৰহণ করতে হয় না। বিশ্ব-বিদ্যালয়ের কোন পরীক্ষায় পাস বা ফেল হ’লেই মাষ্টারী করবার সনন্দ পাওয়া যায়। অমন সোজা চাকুরী আর নেই ; একদিনের জন্যও মাষ্টারীর শিক্ষাগ্ৰহণ করতে হয় না। ছেলে পড়ানো বিদ্যাটা আমরা এতই সহজ করে নিয়েছিলাম। ওর জন্য সাগরেী DBBB D DJYSiDBDDB BLDD iDiYS DtS EDD DD Dt SBDDuBDS প্ৰাপ্য (এখন কিছু দুগুপ্ৰাপ্য) চাকুরীর পথ খোলা ছিল ব’লে আমাদের মত ফেল-করা মূর্থেরাও পার হয়ে গিয়েছিল। থাকুক। সে কথা। ১৮৮১ অব্দে পাঁচশ টাকা বেতনে গোয়ালন্দ স্কুলে থার্ড মাষ্টার হয়েছিলাম। দাদার কাছে থাকি, কোন ভাবনা নেই। মাইনের টাকা BB BDDB DBuD DS DD DBB BBD S DBDDB DDD SYu