পাতা:আদায়ের ইতিহাস - মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


R VN “কিন্তু চাকরী করলেই জড়িয়ে পড়বা যে। বাড়ীর লোকের মুখ চেয়ে চাকরী নেওয়ার মানেই দাড়াবে-” “বাড়ীর লোকের মুখ চেয়ে চাকরী নেবে কেন ? নিজের জন্য চাকরী নেবে, বড় কিছু করবার অঙ্গ হিসাবে চাকরী নেবে। কি করব, এখনও ঠিক করতে পারিনি, চাকরী করে যা পারি উপার্জন করা যাক—এই ভেবে চাকরী নেবে। বাড়ীর লোকের মুখ চেয়ে বড় কিছু করা যায় না, তিষ্ট। সাকসেসের জন্য স্বার্থপর না হলে চলে না। অবশ্য বাড়ীর লোকের মুখ কেন, পৃথিবীর লোকের মুখ চাইতে কোন বারণ নেই, সকলকে বঞ্চিত করে নিজের সুখ খোজার স্বার্থপরতার কথা বলছি না-সাকসেসের পথে বিস্ত্র হিসাবে যা কিছু দাড়াবে, সে সমস্ত বিসর্জন দেওয়ার কথা বলছি। যেমন ধরাতুমি যেদিন চাকরীটা ছেড়ে দেবে, বাড়ীর লোক সেদিন কেঁদো-কেটে চোখ ফুলিয়ে ফেলবে, তুমিও তাদের সঙ্গে কঁদিবে, অন্ততঃ মনে মনে कँांगांव । क्रिखु उांद८द, कॅट्रिक, ऐश्रांश क्रि !' সাড়ে দশটার সময়ে ত্ৰিষ্টুপ বাড়ী ফিরিল। অবিনাশ রান্নাঘরের দরজার কাছে মোড়ায় বসিয়া তামাক টানিতেছিলেন; তখন পৰ্য্যন্ত তিনি স্নানও করেন নাই। ‘আপিস যাওনি যে ? ‘লজা করে না তোর ? যোয়ানমদ তুই ঘরে বসে থাকবি, বুড়ে বয়সে আমি খেটে মরব ? তুই যদি না যাস, আমিও আর यदि ना |” ‘চল, চল আমি যাচ্ছি।”—এক খাবলৈ তেল নিয়ে মাথায় ঘষিতে ঘষিতে ত্রিষ্টপ অদ্ভূক্ষপ্ত স্নান করিতে গেল। বড়বাবু পদ্মলোচন অভিমান করিয়া বলিলেন, “প্ৰথম দিলন্টািড়ভাই দেরী হল অবিনাশ কাচুমাচু করিয়া বলিলেন, ‘মন্দিরে একবার পুজো गेिड शिभू-'