পাতা:আদায়ের ইতিহাস - মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৬৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ইতিহাস Vy “বললাম তো দাদা আসতে বললেন ।” ত্ৰিষ্টুপ এবার B DBBD S SSSS S BDS S DLSS BDD মত এমন দাদাভক্ত কখনও দেখিনি কুন্তী।” কুন্তলা একটু হাসিল। ত্ৰিষ্টুপ আরও চটিয়া গেল।—“তোমায় এখানে কেন এনেছি জান ? বিয়ে করব বলে। দরকার হলে জোর করে” বিয়ে করব বলে। বুঝতে পারছি সেটা কি ?” কুন্তলা মাথা হেলাইয়া সায় দিয়া বলিল, দাদা বলছিল, আপনি ভয়ানক একগুয়ে ।” ত্ৰিষ্টপ ক্লিষ্ট জ্বালােভরা হাসি হাসিল।—‘একগুয়ে ? তোমার দাদা। তাই জানে। একগুয়ে হলে, এত করে’ তোমাকে এখানে এনে মত বদলােতাম না। কুন্তী। আমার এতটুকু মনের জোর নেই। তোমাকে হাতে পেয়ে ছেড়ে দিচ্ছি।” “ছেড়ে না দিলে কি হ’ত ?” “আমাকে বিয়ে করা ছাড়া তোমার কোন উপায় থাকত না । মণিদাকেও বাধ্য হয়ে আমার সঙ্গে তোমার বিয়ে দিতে হত ।” কুন্তলা মুখ নীচু করিয়া মৃদুস্বরে বলিল, “আপনি দাদাকে জানেন না।” ত্রিষ্টপ ব্যঙ্গ করিয়া বলিল, “বল কি! আজি আমাদের আসল বিয়েটা হয়ে গেলেও, তোমার দাদা সামাজিক বিয়ে দিতেন না ? বেশ, বেশ । তারপর তোমার দাদার পছন্দ-মত বরের সঙ্গেই বিয়ের আয়োজন হলে, তুমিও বোধ হয় দাদার আজ্ঞা মাথায় ক’রে রাজী হয়ে যেতে ?” ‘দাদা আপনাকে চেনেন, তাই আমাকে আসতে দিয়েছেন । দেখছেন তো দাদার ভুল হয় নি ? ? ত্ৰিষ্ঠপের সমস্ত মানসিক প্রতিক্রিয়া মণীশের বিরুদ্ধে একট। দুঃসহ ক্ৰোধে পরিণত হইয়া গিয়াছিল। কুন্তলার কথায়তার মাথা খারাপ হইয়া গেল ।