পাতা:আদায়ের ইতিহাস - মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


छेडिश्न LSDBDBDDD DDBD D DBBS BDBDB BDBDSS আধপোড়া বিড়ি কুড়াইয়া খায়, তিন বছরে রমেশের এমন অবস্থা হইয়াছে ? প্রভার জন্য ক্রিষ্টপ হঠাৎ গভীর মমতা বোধ করে। রমেশকে আজ আধাপোড়া বিড়ি কুড়াইয়া বেড়াইতে হয় বলিয়াই তো প্ৰভা সারাদিন নালিশ করিয়া কঁাদিবার অজুহাত খোজে। আর কয়েক বছর পরে দু’জনের অবস্থা কি দাড়াইবে কে জানে । অবিনাশ আর ধৈৰ্য ধরিতে পারিলেন না, একবার একটু কাসিয়া বলিলেন, “তা’হলে চান-টান ক’রে—” ‘ाएछा७, डाजछि ।' ত্ৰিষ্টুপ একেবারে বাড়ীর বাহিরে চলিয়া গেল, গলির মোড়ে গিয়া চুপ করিয়া দাড়াইয়া রহিল। কি করা উচিত তার একবার ভাবিয়া দেখিবার জন্য সে এখানে পলাইয়া আসিয়াছে ; কিন্তু ভাবিবার কিছুই খাজিয়া পাইতেছে না। দ্বিধা ও সন্দেহে সমস্ত চিন্তা এলোমেলো হইয়া যাইতেছে। মা ও বাবার জন্য, প্ৰভা রমেশের জন্য কিছু দিন চাকরী সে করিতে পারে, কিন্তু কেন করিবে ? নিজের বিশ্বাস, আদর্শ আর নবলব্ধ প্রেরণা বলি দিয়া লাভ কি হইবে ? এক ঘণ্টার মধ্যে প্ৰথম বাধার কাছেই যদি সে হার মানে, অত বড় প্ৰতিজ্ঞ করার কি দরকার ছিল ? মন যার এমন দুর্বল, তার আত বাহাদুরী করা কেন নিজের কাছে ? খানিক আগে যে স্থির করিয়াছে সে চাকরী করিবে না, পৃথিবী রসাতলে গেলেও করিবে: না, এত শীগগির তাকে বাড়ী ছাড়িয়া পলাইয়া আসিতে হইয়াছে- চাকরী করিবে কি না, আর একবার ভাবিয়া দেখিবার জন্য ! সে যে সত্যই অপদার্থ, এর চেয়ে তার বড় প্ৰমাণ আর কি আছে ? কিছুদিনের জন্য—? নিজের মনেই ত্রিষ্টপ সংশয়ভরে মাথা নাড়ে। কিছুদিন পরে তো আর অবস্থা বদলাইবে না, বরং সে আরও জড়াইয়া পড়িবে। আজ চাকরী আরম্ভ না করা যত কঠিন মনে হইতেছে,