প্রধান মেনু খুলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ষষ্ঠ গর্ভাঙ্ক । ] ਸ কাকুতি কেন ? আমি আমার কাজ ক’রে যাই, পারিস তুইও আমার মতন এই রকম আদিত্যবংশের উপর প্রতিশোধ নিস? লক্ষ্মী। না মা ! আমি তোমার মত হতে চাই না। একান্তই যদি তাই করতে হয়, তবে একটা মিনতি রাখ ; আমার আজ মা নাই, মায়ের মত তোমরা একটু মুখপানে চাও,-আগে আমায় হত্যা কর, তারপর যা করতে হয় ক’রো। আমি আমার সিখীর সিন্দুরবিন্দু রেখে বাই, দেখে যাই।--জীবনের শেষ মুহুৰ্ত্ত পৰ্যন্ত আমি সধবা । [অপরাজিতার পদতলে পড়িল ] অপরা। না লক্ষ্মী ! তোকে থাকতে হবে। যদিও তুই আমাদেরই কুলকন্যা, তবু হৰ্ষবৰ্দ্ধনের কুলবধু; তোকে আমার এ জালার অংশ নিতে হবে। ঐ আমার স্বামী ইঙ্গিত করছে ! ঐ মেঘগর্জন তার হুঙ্কার, ঐ বিদ্যুৎ তার রোষ কটাক্ষ ! না-এখানে আর স্নেহ, দয়া কিছুই টিকৃতে পারে না। শুদ্ধ প্ৰতিহিংসা ! জয় মা-4 খড়গ তুলিলেন। } লক্ষ্মী । [ শক্তিবৰ্দ্ধনকে জড়াইয়া ধরিয়া উচ্চকণ্ঠে চীৎকার করিতে লাগিলেন ] কে আছ, রক্ষা কর । রাক্ষসী-বাক্ষসী ! বেগে সায়নাদিত্য সেই কক্ষে প্ৰবেশ করিলেন । সায়ন । ভয় নাই-ভয় নাই ভগ্নি ! [ অপরার সম্মুখে দাড়াইলেন । কি মা! তুমি আবার এখানে ? একে তো জগতে যা কেউ পারে নামূচ্ছিত সমরশান্বিত বীরের নিষ্ঠুর হত্যা, তুমি তাই ক’রে এসেছ ; একটা কথা কই নাই। তাতেও তোমার আশা মিটুলো না মা ? পুনরায় নিজের বুকে চুরি বসাতে এখানে পৰ্য্যন্ত এসেছ ? এত প্ৰতিহিংসার জ্বালা তোমার ? তুমি’কি ভেবেছ মা, আগুনে পড়ে অঙ্গ শীতল কৰূৰে ? নরকে নেমে স্বর্গের চূড়া দেখবে ? এই পৈশাচিক [ ܦܘ܀ ]