প্রধান মেনু খুলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পঞ্চম গর্ভাঙ্ক । ] আদিশূত্র আর মার্জনা নাই; জয়নাদে গর্জন কর। জগত । জগত চমকিত ক’রে বিদ্যুজ্বলিকে অস্ত্র ধরা। শক্তি ! 'সিংহ শক্তিতে অগ্রসর হও। আজ | ८छ्द्र ५2ऊिँ । কণোজ-সৈন্যগণ। জয় কণৌজরাজ বীরসিংহের জয়! আদিশূর। [ নিজ সৈন্যগণকে বলিলেন ] ভাই সব ! তোমরা বীর-হিন্দুকুলতিলক । " তোমাদের ধৰ্ম্মের প্রতিষ্ঠাতা যুধিষ্টির, পাৰ্থ, বাসুদেব। তঁদের মৰ্য্যাদা রাখ-তঁদের ধৰ্ম্মের পুনরুদ্ধার কর-সমস্ত ভারতবর্ষ জুড়ে ভূমিকম্প আন।। আজ তোমাদের রাঙ্গসূক্ষযজ্ঞের সঞ্চয়। বঙ্গ-সৈন্যগণ। জয় বঙ্গাধিপ আদিশূরের জয় । [ উভয় পক্ষ যুদ্ধ করিতে করিতে চলিয়া গেল। উন্মাদে আত্মহারা হইয়া তক্ষশীল উপস্থিত হইলেন । তক্ষশীল। বাহবা ! বাহবা | বাঘ ঠিক বাঘের মতই বাপিয়েছে। কঁপাবে বৈ কি ! তার বুকের বল আর আমার ইঙ্গিতের উত্তেজনা আগুনের উপর ঝড় ! এই সময় সামন্ত এসে পড়ে ! একেবারে ত্র্যঙ্গস্পর্শ! যাক, তার আস্বার এমন কিছু সময় যায় নাই। ঐ বুঝি আদিশূর উদ্ধার মত রণক্ষেত্রে ছুটছে! যে দিকে যাচ্ছে, দাউ দাউ ক’রে আগুনের মত জ’লে উঠছে! সূৰ্য্যান্তে ভীষ্মশরে পাণ্ডবসৈন্তের মত বিপক্ষরা গাছপড়া হ’য়ে পড়ছে। [সামন্তকে উদ্দেশ করিয়া বলিলেন } তাই তো, তার আসা দরকার হয়েছে যে ! এখনও করছে কি ? সাবধান বীরসিংহ! সাবধান জগতবৰ্দ্ধান! এগিও না! আদি ! আদি ! ওদের মাথা দুটো আগে নাও তো! হাঁ-হঁ, ছোট-ছোট ! বা-বা ! ঐ সামন্ত সৈন্য নিয়ে আসছে না 7 জয় তারা! না-ওটা তো মেঘ। এ দিকে কি ? ঐ আসছে! না-ওগুলো তো গাছপালা। এ:! জালালে দেখছি।-- et