পাতা:আদিশূর ও বল্লালসেন.pdf/২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আদিশূর ও বল্লাল সেন । }(t. তৎপুত্র লক্ষণসেন প্রভৃতি সোমবংশে জন্ম গ্রহণ করিয়াছেন এপ্রকার শ্লোক খোদিত আছে। রাজেন্দ্র বাবুর মতে বীরসেন প্রভৃতি চন্দ্রবংশ সম্ভত, অতএব তাহারা অবশ্য ক্ষত্রিয় জাতি, এবং তিনি অনুমান করেন, বীরসেন আদিশূরের নামান্তর মাত্র । বীর ও শুর উভয়েই একাৰ্থপ্রতিপাদক শব্দ, অতএব বল্লালের পূর্বপুরুষগণ মধ্যে বীরসেন, বংশ প্ৰবৰ্ত্তন হেতু, আদি শব্দ সংযোগে ও বীরস্থানে শুর পরিবর্তন হইয়া আদিশূর নামে বিখ্যাত হইয়াছিলেন। আদিশূর এবং বীরসেন উভয়েই একব্যক্তি, সুতরাং রাজসাহির প্রস্তর ফলকাঙ্কিত এবং বাখরগঞ্জের তাম্রশাসনের শ্লোকানুসারে আদিশূরের ক্ষত্রিয়ত্ব নিরূপণ হইতেছে। রাজেন্দ্র বাবু এতদুভয় প্রমাণ বলে আদিশূর প্রভৃতির ক্ষত্রিয় জাতি নিৰ্দ্ধারণ করতঃ বলিয়াছেন যে, আদিশূর বৈদ্যজাতি, এই জনপ্রবাদ ও সাধারণ সংস্কারের বিপরীত লিখিত প্রমাণ বিদ্যমান থাকা হেতু, উক্ত প্রবাদ ও সংস্কার সম্পূর্ণ অগ্রাহ্য। তবে এ প্রকার গুরুতর ভ্রম কি প্রকারে উৎপন্ন হইল ? তিনি বলেন যে “পুরাকালে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে অম্বষ্ঠ নামে এক ক্ষত্রিয়বংশ বাস করিত, বিষ্ণু পুরাণে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় ভিন্ন ভিন্ন জাতির উল্লেখ স্থলে এই ক্ষত্রিয়দিগের "উল্লেখ আছে “ মদ্রা রামা স্তথাম্বষ্ঠাঃ পারসিকাদয়স্তথা । পাণিনি এক শব্দে–ক্ষত্রিয়জাতি ও তাহাদিগের বাসস্থান—এই দুই প্রকার অর্থাত্মক শব্দের উদাহরণ স্থলে অম্বষ্ঠ শব্দের উল্লেখ করিয়াছেন, (পাণিনি ৪।১১১৭ সূত্র)। মহাভারতে ঐ শব্দ এক ক্ষত্রিয় জাতি এবং ক্ষত্রিয়রাজার নাম বিশেষে ব্যব