পাতা:আদিশূর ও বল্লালসেন.pdf/৪২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আদিশূর ও বল্লাল সেন ¥)& যাহা হউক, রাজেন্দ্র বাবু বীরসেনকেই আদিশূর প্রতিপন্ন করিতে ষত্ব করিয়াছেন। তাহার মতে “ বীর ” ও “ শুর ” শব্দ উভয়েই একার্থপ্রতিপাদক, “বীর” স্থানে প্রথমে “ শূর ” শব্দ পরিবর্তন হইয়া, বীরসেন স্থানে শূরসেন হইয়াছে। তৎপরে বংশ প্রবর্তন হেতু “ আদি ” শব্দযোগে “বীরসেন ” স্থানে “ আদিশূর ” নাম সংঘটিত হইয়া জনসমাজে খ্যাত হইয়াছে । । “ বীরসেন ’ পরিবর্তে একবারে আদিশূর হওয়া নিতান্ত অসম্ভব এবং অযৌক্তিক । কোন নাম এক ভাষা হইতে বিজাতীয় ভাষাতে লিখিত হইলে রূপান্তরিত হইতে পারে বটে, কিন্তু এক ভাষাতে “ আদিশূর ” স্থানে “ বীরসেন” হইতে পারে না । নানা পুস্তকে আদিশূরের নাম উল্লেখ আছে, আদিশূর বঙ্গদেশে বেদবিৎ পঞ্চ ব্রাহ্মণ সংস্থাপন করিয়া অনন্ত কীৰ্ত্তি রাখিয়া গিয়াছেন । রাজসাহীর প্রস্তর ফলক বিজয়সেনের রাজত্বকালে খোদিত হইয়াছিল, এবং তন্মধ্যে যে সকল শ্লোক অঙ্কিত অাছে তৎসমুদয় বিজয়সেনের অভিপ্রায়ানুসারেই রচিত হইয়াছিল। এই সকল শ্লোকে আদিশূরের নামোল্লেখ নাই, অথচ বীরসেনের সবিস্তার বর্ণনা আছে। আদিশূর এবং বীরসেন এক ব্যক্তির নামান্তর হইলে, রাজসাহীর প্রস্তারাঙ্কিত শ্লোকে বিজয়সুেন স্বীয় বংশপরিচয়ে আদিশূরের নামোল্লেখ করিতেন, এবং আপনাকে বীরসেন বংশোদ্ভব না বলিয়া আদিশূরবংশোৎপন্ন বর্ণনা করা শ্ৰাঘ্যতর বিবেচনা করিতেন। অখ্যাত নামে পিতৃপুরুষদিগের পরিচয় কেহই প্রদান করে না। এ প্রকার পরিচয় প্রদান