পাতা:আদিশূর ও বল্লালসেন.pdf/৬৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আদিশূর-ও বল্লালসেন । 邀> পারে, এরূপ প্রবল এবং অকাট্য প্রমাণ যে পৰ্য্যন্ত প্রদর্শিত না হইবে, তৎসময় পৰ্য্যন্ত সেনবংশীয় দিগের জাতি সম্বন্ধে ভিন্ন মত গ্রহণীয় হইতে পারে না । - আবুল ফজেল কৃত “আইন আকবরিতে” আদিশূরবংশীয়, পাল বংশীয়, এবং সেনবংশীয় নৃপতিগণ “কয়থজাতীয়”বলিয়া উল্লিখিত হইয়াছে। বোধ হয় “কয়থ”কায়স্থ শব্দের অপভ্রং হইবে। স্ত্রীযুক্ত রাজেন্দ্রলাল মিত্র বাহাদুর অনুমান করেন,আবুল ফজেল অম্বষ্ঠ জাতিকে অম্বষ্ঠ কায়স্থ জ্ঞান করিয়া ভ্রমবশতঃ সেনবংশীয় রাজাদিগের কায়স্থ জাতি নির্দেশ করিয়াছেন। আমাদিগের ও ঐ মত। আবুল ফজলের সময়ে দিল্লীঅঞ্চলে অম্বষ্ঠ জাতির বাস ছিল না, এজন্য তিনি অম্বষ্ঠ, এবং অম্বষ্ঠ কায়স্থ যে দুই স্বতন্ত্র জাতি, নিরূপণ করিতে পারেন নাই । যে সকল প্রস্তর ফলক এবং তাম শাসনের প্রমাণ বলে আদিশূর এবং সেনবংশীয়দিগেরজাতিসম্বন্ধে মতান্তর উপস্থিত হইয়াছে উল্লাহ আবুল ফজেলের সময়ে কাহারও বিদিত ছিল না; এবং অন্য কোথায় ও সেনবংশীয় নৃপতিদিগের কায়স্থ জাতীয় বলিয়া উল্লেখ নাই। সুতরাং আইন আকবরিতে আদিশূর ও বল্লাল প্রভৃতির কয়থ জাতি উল্লেখ ভ্ৰম পূর্ণ সন্দেহ নাই । রাজসাহীর প্রস্তর ফলক এবং বাখরগঞ্জের তামশাসনের লিখিত বিবরণ আলোচনা করিলে একটা প্রশ্ন সহজেই অন্তঃকরণে উদয় হয় যে,সেনবংশীয়ের উক্ত বিবরণে স্বীয় श्रीक्षा বংশ পরিচয় সবিস্তাররূপে প্রদান করিয়াঃ তাহাদিগের