পাতা:আনন্দ রহো.djvu/২১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


( २२ ) লছ-(কানুনের প্রতি ) ঐ শুকনে কুড়িটে যেন সাত রাজার ধন ; এত গোলাপ ফুল ফুটে রয়েছে তোর মন ওঠেন। বুঝি, ঐ শুকনে কুড়িটা হাতে করে নিয়ে বেড়াচিস্ । কানু—হঁ্য। ভাই যমুনা ! বাসি তোড় গুলো জলের উপর বসিয়ে রাখলে অনেকক্ষন থাকে-না ? লহ—দেখলি ভাই মেকাম দেখলি ; তোড় গুঞ্জে জলে বসিয়ে রাখে বলে, উনি শুকনে কুড়িটা জলে বসিয়ে রাখবেন । তুমি ভাই আমার তোড়ার সঙ্গে রেখানা, রাখতে হয় তোমার ঘরে ভাল করে জল দে রখে গে। কানু—আমার রাখতে হয় রাখবো, ফেলে দিতে হয় দেবো ; তোমার কি ? - ( নেপথ্যে—“তানন্দ রহে ! আনন্দ রহে|” !! ) লহ-প্রহরীরা সব ঘুমুচে না কি ? তুমি বল ভাই “রাগিস কেন”, বাগানে বসিছি দুদণ্ড কথা কব না, “আনন্দ রছে ! আনন্দ রছে।" ! ! ( সেলিমের প্রতি ) তুমি “চুপ চুপ" কর, আর নারাণমিং বলুগ, “সব ঠিক" তা হলেই হয়েছে। যমু—অামি সাধে বলি, “তুমি রাগ কেন” ; রাস্তায় কে কচে “আনন্দ রহো’ ত প্রহরীর কি করবে ? - মারা—ঠিকই তে । লহ-তুমি কর “চুপ, চুপ" । নারা—আচ্ছা, ন রাজকুমারী আমি কথা কব না । যমু-আচ্ছা, ভোমরা গুলো কেমন করে মধু খায় ? লছ-এই নাও-ওকে বলে দাও, বলি আমার সঙ্গে নাই বা কথা কইলে, যমুনাকে বুঝিয়ে দাও না,--ভোমরা কেন মধু খায়কাটঠোকরা কেন কাটে ঘা মারে, পাপীয় কেন ডাকে, পাথরে পাথরে কেন তমঃ গুন ওঠে ।