পাতা:আনন্দ রহো.djvu/২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


( و ) কানু—ম ভাই, আমি একখানা পাথরে জল বেকতে দেখেছিলেম, মস্ত পাহাড়-ঝুর, ঝুর, করে জল গড়িয়ে পড়ছে। ( নেপথ্যে—“আনন্দ রছে ! আনন্দ রহে৷” ! ! ) লছ—ঐ মাও ভাই । সেলি-তুমি বস, আমি প্রহরীদের বলছি ওকে পাগলা-গারদে দিতে । ( প্রস্থান ) নারা—ওতে পাগল না, রাজকুমারী ! ওকে গারদে দিতে মান কৰুন । লহু-না পাগল না ও সাধুপুৰুষ, সাধুপুৰুষ তো গারদে গিয়ে “আনন্দ রছে।" ককগ না –সেইখানে ওর “অনিন্দ রহে|” বেরিয়ে যাবে। যমু—আহা ! ও পাগল হোক যা হোক, ওতো কাক কিছু করে না। কানু—আমায় ফুলটা হাতে দিয়ে বল্লে“আনন্দ রহে ! স্নানন্দ রহো"!! লহ—ভাই, তাত শোহাগ যদি আমার ভাল ন লাগে ; তোমাদের দয়ার শরীর তোমরা এখান থেকে উঠে যাও । কানু—তুমি ভাই যখন তখন উঠে যাও বলে, সে দিন অম্নি যমুনা-দিদি কাদছিল । লহ-তোমার যমুনা দিদিটী কেমন ! সে দিন মারাণসিংহের সঙ্গে কথা কচ্ছিলুম ওঁর আর প্রাণে সইলে না, মাজখান থেকে এক কথা তুল্লেন ; তাই একটা কথার মতন কথা হক, না “ফুল গুলি আর পাখিগুলি ঠিক এক" ওদের পাহাড়ে দেশে বুঝি পাখি পুখলে ফুল ফোটে । দেশ স্তে নয় যেন মৰুভূম ! যমু-ভাই, অামার পাহাড়ে দেশ অামারই ভাল, তোমার দিল্লী সহরে ভাই আমার কাজ নাই । (প্রস্থান ) কানু—তা সত্যি তো, যার যে দেশ তার সে ভাল। এই যে তোমার এত গোলাপ ফুল ফুটে রয়েছে আমি কি তা মিচি, আমার এই শুকনে কুড়িটাই ভাল। ( প্রস্থান ) -