পাতা:আমার কথা (নটী বিনোদিনী) প্রথম খণ্ড.djvu/১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


to e নিজ ভূমিকার প্রতি যদ্ধ করিলে জনসমাজে প্রশংসাভাঙ্গম হইতে পারে। এইরূপ চিন্তা করিয়া আমি ভূমিকা লিখিতে প্রবৃত্ত হইয়াছি। যদি দোষ হুইয়া থাকে, অনেক দোষেই মার্জন!. প্রাপ্ত হইয়াছি, ইহাতেও মার্জন পাইব-ভরসা করি। বিনোদিনীর এই ক্ষুদ্র জীবনী একশ্রোন্তে লিপিবদ্ধ হইলে, উত্তম হইত ; কিন্তু তাহা ন হইয়া অবস্থাভেদে সময়ভেদে লেখা হইয়াছে, তাহা পড়িধামাত্র বোঝা যায়। বিনোদিনী মনের কথা বলিবার প্রয়াস পাইয়। সহানুভূতি চাহিয়াছে ; কিন্তু দেখা যায়, কোথাও কোথাও সমাজের প্রতি তীব্ৰ কটাক্ষ কাছে । ষে যে ভূমিকা বিনোদিনী অভিনয় করিয়াছিল, প্রতি অভিনয়ই মুন্দর, কিরূপে তাহা অভ্যাস করিয়াছে, তাহাও বর্ণিত আছে,-কিন্তু সে বর্ণনা অনেকটা কবিতা। কিরূপ চেষ্টায় কিরূপ কার্য হইয়াছে, কিরাপ কঠোর অভ্যাসের প্রয়োজন, কিরূপ কণ্ঠস্বর ও হাব ভাবের প্রতি আধিপত্য আবশ্যক-এ সকল শিক্ষোপযোগীরূপে বর্ণিত না DDD BBBB BBB BBS DDBBYS D BBB BBBB BBS আত্মজীবনী লেখার কৌশল, সে কৌশল ক্ষুঃ কুইয়াছে । আমি গুহ্যর প্রধান প্রধান ভুমিকাভিনয়ে, যতদূর স্মরণ আছে, সে চিত্র পাঠককে দিবার চেষ্টা করিতেছি । বিনোগিনী যথার্থ বলিয়'.ছ যে, তাহার ভূমিকা উপযোগ পরিচ্ছদে স্থসজ্জিত হইবার বিশেষ কৌশল ছিল। একটি দৃষ্টান্তে তাহার কতক প্রকাশ পাইবে বুদ্ধদেবের অভিময়ে বিনোদিনী গোপার ভূমিকা গ্রহণ করে। একদিন ভক্তচূড়ামণি স্বৰ্গীয় বলরাম বস্থ “বুদ্ধদেব" দেখিতে যান। তিনি এক অঙ্ক দর্শনের পর সহসা সজাগৃহে যাইবার ইচ্ছা প্রকাশ করিলেন । কেন যে