পাতা:আমার বাল্যকথা - সত্যেন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৩৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দ্বিজেন্দ্ৰনাথ ঠাকুৱা (বড়দাদ) ছেলেবেলায় বড়দাদা আমার সঙ্গের সঙ্গী ছিলেন, আমার কনিষ্ঠ ভ্ৰাতা হেমেন্দ্ৰনাথ প্ৰথম বয়সে আমাদের সঙ্গে সমকক্ষভাবে মেশবার, অধিকারী ছিলেন না। বড়দাদা যখন খুব ছোট তখন থেকে তঁর ছবি আঁকার নৈপুণ্য ও কবিত্ব শক্তি প্ৰকাশ পায়-কিন্তু হায়! এই দুই বিদ্যার কোনটিই তঁর জীবনে স্থায়ীভাবে কার্যকরী হল না। র্তার বাল্যকালের কবিত্বোচ্ছাসে দুইটি কাব্যরত্ন প্ৰসূত হয়-মেঘদূতের পদ্যানুবাদ ও স্বপ্নপ্ৰয়াণ ; তা ভিন্ন গুম্ফাক্রমণ কাব্যঞ্জ অন্যান্য ছোট খাট কবিতা অনেক আছে যা সেই সময়কার ভারতী প্রভৃতি পত্রিকা খুজলে পাওয়া যেতে পারে। কিন্তু কি জানি কি কারণে, বাদেগবী চপলা লক্ষ্মীর ন্যায় তার নিকট হইতে সহসা অন্তর্ধান হলেন, বড়দাদা কাব্যামৃতপান হতে বিরত হয়ে তত্ত্ববিদ্যানুশীলনের দুরূহ চিন্তা ও ধ্যানে মগ্ন হলেন, চিত্রকলার চর্চাও ঐখানে থেমে গেল। তত্ত্বজ্ঞান আলোচনার সঙ্গে সঙ্গে আর দুইটি সৌখিন কলা র্তার মনোরাজ্য অধিকার করে বসল—বাক্সরচনা প্ৰণালী, আর রেখাক্ষর বর্ণমালা। এতে এত সময় নষ্ট করা হল কেন ? জিজ্ঞাসা করলে বড়দা হেসে বলেন, এ শুধু ছেলেখেলা নয়, এ দুই বিদ্যা সাহিত্যেরই অঙ্গীভূত। লিখতে বসলে লেখবার নানা সরঞ্জাম চাই, কাগজ, কাগজ রাখবার বাক্স, পকেট বই-এই সকল সামগ্ৰী আগে থাকতে সংগ্ৰহ করতে হয়-তাই লেখাপড়ায় দিনকতক ক্ষান্ত দিয়ে বড়দা লেখবার জিনিষ। তয়েরির কাজে মন দিলেন । একদিকে যেমন, R

  • পড়ে যেই লোক এই শ্লোক, পায় সে গুম্ফালোক ইহার পরে। যথা গুম্বকধারী ভারি ভারি, গোপের সেবা করি সুখে বিচারে ৷ JYBDDDED BBD DODB DBBDBD Dt g DBD DLDBB BBSS

am)