পাতা:আমি শুধু একা - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/১৪৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভীত আতঙ্কিত একটি মানুষ ক্রমশ চেতনা ফিরে পায়। গাড়িটা পিছনের গেট দিয়ে এবাড়ির ওদিকে এসে থেমেছে। বসন্তবাবু নেমে আসেন। তখনও সেই ভয়টা তার মন ছুয়ে রয়েছে। আজ সব মোহ তার কেটে গেছে। পটলও এদের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিল। প্রচুর টাকার মাল আসছে। এদের গাড়ির উপর নজর রাখার জন্য লোকও ছিল আশপাশে। পটল জানে সাবধানের মার নেই। তাই এভাবে সাবধানে প্রহরা দিয়ে মালপত্র আনে, বসন্তবাবু সেটা জানেন না। ওই অন্য গাড়ির লোকই খবর দেয় যে পুলিশের হাতে পড়েছিল তারা, কোনমতে বেঁচে এসেছে। তাই পটল ওদের আসতে দেখে একটু নিশ্চিন্ত হয়। মালপত্র নিয়ে যা ওঘরে। সব ঠিক আছে তো ? ড্রাইভার মাথা নাড়ে । পটল খুশী হয়ে কিছু টাকা ওর দিকে এগিয়ে দিতে লোকটা নিয়ে চলে গেল। পটল বসন্তবাবুর দিকেও কিছু টাকা এগিয়ে দেয়। --নিন মাষ্টারমশাই! মাষ্টারমশাই! ওটা এখন বসন্তবাবু ডাকনাম মাত্র। রাম-শ্যাম-এর মতই। নাহলে র্তার ছাত্র পটল আজ চোরা-চালানদার হয়ে শিক্ষককে এই ভাবে মাল আনার জন্য টাকা দিতে পারতো না। বসন্তবাবুর কথাটা ভাবতেও কষ্ট হয়। আজ তাই স্পষ্ট সতেজ স্বরে তিনি বলেন।


ওসব রেখে দাও পািটল।

পটল ওঁর কণ্ঠস্বরে অবাক হয়। এ যেন আগেকার দিঘীর পাড়ের সেই বসন্ত স্যারের কথা শুনছে সে। বসস্তবাবু বলেন-একাজে আর থাকবো না পটল, কাল থেকে আমি ছুটি চাইছি। তোমার উপকারের জন্য ধন্যবাদ। আমাকে এবার নিষ্কৃতি দাও। পটলও কঠিন হয়ে ওঠে ওঁর কথায়। এতদিন ধরেও তার এই সব কাজ করেছে। সব ঘাঁটিগুলোই চিনেছে। কিছু লোকজনকেও চিনেছে। ওকে ছেড়ে দেওয়া নিরাপদ S8 وہ لا۔۔۔ Fyچegg &کif