পাতা:আমি শুধু একা - বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়.pdf/৪৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


না করে সব খাবে! আব লক্ষ লক্ষ মানুষ। শুধু দারিদ্র্যা-বেকারীর মধ্যে ডুবে থাকবে ? ছেলেরা জাহান্নামে যাবে। -- অমৃত বলে।


আমরা একদিন হয়তো ভুল শুধরে নোব। তাই বলে ব্রিটিশের অধীনে চিরকাল থাকতে হতো–এ যুক্তিকে মানতে পারি না।

অসিতবাবু এতক্ষণ অমৃতকে নীরব শ্রোতা আর সমর্থক ভেবেই ওই সব কথা শুনিয়েছিলেন। এখন অমৃতকে প্রতিবাদ করতে দেখে বৃদ্ধ চটে উঠেছেন। আগেকার মত হাকিমী মেজাজ নিয়ে সদৰ্পে হুমকি দিয়ে ওঠেন। —সন্ট্যাণ্ড আপ এ্যান্ড স্পিক প্রপারলি । কার সঙ্গে কথা বলছে এটা তোমার জানা উচিত ছিল। ইয়ংম্যান! আই ক্যান প্রসিকিউট ইউ দি কোর্ট অব ল’। আণ্ডার সেকশন--- অমৃত ওঁর চিৎকারে বিস্মিত হয়েছে। রাত্রিও জানে বাবার এই স্বভাবের কথা । এই ব্যাপারটা কিছুদিন থেকেই ঘটছে। ডাক্তার বলেন-নার্ভাস ব্রেকডাউন। রাত্রিও দেখেছে। বাবার এই আকস্মিক উন্মত্ততা, ও যেন বদলে যায় হঠাৎ । তাই হাঁই ব্লাড প্রেসারের রুগী তার বাবাকে সামলাবার চেষ্টা করে রাত্ৰি। --ড্যাডি! তোমার ওষুধটা খাবার টাইম হয়ে গেছে। ডিনার খাবারও দেরী হয়ে যাচ্ছে। প্লিজ অসিতবাবু এখানের কথাবার্তায় আর কোনো তৃপ্তির সন্ধান পান নি। বরং রেগে উঠেছেন ছোকরার ওই সব প্রতিবাদের কথায়। তিনি তাই এড়িয়ে যেতে চান। কি ভেবে থামলেন তিনি। তাই ক্লাস্ত স্বরে বলেন অসিতবাবু। — ট্রাই টু মেণ্ড ইয়োর হ্যাবিট মাই ফ্রেণ্ড । বেবী কাম এলং। রাত্রি এগিয়ে যায় বাবার কাছে। নীরব রাগে উত্তেজনায় বােধ হয় কঁপিছেন তিনি। মেয়েকে সাবধান করেন অসিতবাবু! —ভবিষ্যৎ-এর জন্য সাবধান বেবী, সব বাজে লোকদের এড়িয়ে চলাই সেফ } দে ডু নট নো হাউ টু স্পিক। চল— রাত্রি বাবাকে নিয়ে ভিতরে চলে গেল। ୧ntଲି ଓ ଝ ଞ ·s S.