পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/১০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


L আমেরিকার নিগ্রো হাতে হলেই দুপাটি দাত উঠিয়ে ফেলব ঠিক করেছি, কিন্তু কবে দু'ডলার একত্রিত করতে পারব বলতে পারি না। শরীরের গঠন সম্বন্ধে অনেক বলা হল কিন্তু একটি বিষয় বলা হল না; সেটা যে কি আমিও তা বলতে পারব না। লােকে সেটাকে লাবণ্য বলে ; অনেকে যৌবনও বলে। আমি কিন্তু কিছুই অনুভব করতে পারছি না, তবে ভাল করে বুঝতে পেরেছি আমার দুঃসময় সমাগত। আমার মা সেজন্য বড়ই দুঃখিত। কোন্ দিন কে আমাকে গুলি করে হত্যা করে তার নিশ্চয়তা নেই। মা আপ্রাণ চেষ্টা করছেন আমাকে উত্তরে পাঠিয়ে দেবার জন্য, কিন্তু যেতে হবে মালগাড়ীতে করে। মালগাড়ীতে করে যাওয়া সম্ভব কি না জানি না, সেজন্যই দেরী হচ্ছে। আমার কিন্তু উত্তরে যাবার মােটেই ইচ্ছা নেই। মরতে হয় ত এদেশেই মরা ভাল। আমেরিকানদের যখন যৌবন আসে তখন তারা আনন্দে নাচে, আমরা নাচতে পারি না, এমন কি কথা বলতেও পারি না, বিশেষ করে আমার মত নিগ্রোরা। | আমার শরীরের পরিচয় দিয়েছি, নাম ধাম কিছুই বলিনি। আমার নাম ম্যাক। হতে পারে ম্যাক ডগলাস কি আর কিছু, কিন্তু আমার মা আমাকে শুধু ম্যাকই বলেন, সেজন্য আমার নাম ম্যাক। বাবা যে কে সে সংবাদ মাও রাখেন না। তবে তিনি একজন শ্বেতকায় এবং আমেরিকা। একজন মানুষের বােধ হয় দুটা বাবা হয় না। ডাক্তার বলেন, এক জন মানুষের এক জনই বাবা হয় এবং মা বলতে পারেন সেই বাবা কে? লাজের মাথা খেয়ে এক দিন মাকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম কে আমার বাবা। মা সজল নয়নে বলছিলেন, ז