পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/১১৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিকাগাে হ'তে ডিট্রয় ১১১ মায়ের মৃত্যুর প্রতিশােধ নেব উইলী, এই শরীরের পবিত্র রক্ত দিয়ে পৃথিবীর বুক ধুয়ে দেব, তবে হবে প্রতিশােধের শেষ, এর পূর্বে নয়। তুমি বােধ হয় জান না, বর্তমানে আমার কোনরূপ ভয় নাই। চোর, ডাকাত, বাটপার এমন কি মরণেরও ভয় নেই। অনেকে বলে মরকে ভয় করে না, কিন্তু সেরূপ মানুষ এই পৃথিবীতে কত জন? যে কয়েকজন আছে তার মধ্যে আমি একজন, সেজন্যই বােধহয় আমাকে সবাই ভয় করে। | চিকাগােতে পৌঁছার পর যেদিন সর্বপ্রথম স্বাধীন ভাবে ঘর হতে বাইরে গিয়েছিলাম সেদিন একটি পার্কে বসেছিলাম। পার্কে অনেক গাছ, এবং লতাপাতা ছিল। একটি নিরিবিলি স্থানে বসে যখন ভাবছিলাম মায়ের মৃত্যুর প্রতিশােধ-এর কথা, জুফ্রের মৃত্যুর প্রতিশােধ কি করে নেব, তখন পেছন দিক থেকে একটা লতা আমার গলা জরাবার চেষ্টা করছিল। তাকিয়ে দেখি লতার অগ্রভাগটা ক্রমেই নড়ছে এবং আমার গলার দিকে এসে পড়ছে। লক্ষ করে দেখলাম একটুও বাতাস নেই তবুও লতাটা নড়ছে। একটা আঙ্গুল লতাটার দিকে বাড়িয়ে দেওয়াতে লতাট। আমার আঙ্গুল জড়িয়ে ফেলেনি, তবে ক্রমাগত নড়ছিল। লতাটার কাছে কখন আঙ্গুলটা ধরছিলাম, কখন সরিয়ে নিচ্ছিলাম তখন একটি লােক আমার কাছে বসছিল এবং আমার মনাকর্ষণ করবার জন্ধ বলছিল “তুমি বােধহয় উদ্ভিদ তত্ত্ব নিয়ে ব্যস্ত?” লােকটাকে কি বলতে হবে ভেবে পাচ্ছিলাম না। উত্তর দিতে দেরী হওয়াতে সেই পুনরায় বলছিল “তােমার কাজ তুমি করে যাও, পরে কথা হবে।” এর কথা শেষ হবা মাত্র তাকে বলছিলাম “কি চাও বল ?” চাইবার মত কিছু নেই বন্ধু, চেয়ে আছি তােমার মুখের দিকে। এই লতাটাকে বুঝবার জন্য তুমি যেভাবে চেষ্টা করছ আমিও তােমাকে ", r