পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/১২৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১২১ চিকাগাে হতে ভিট্রয়। ১২১ আপাতত তাই করা যাক, আমিও স্থান পরিবর্তন করব আজই, তুমি এখানে একা থাতে পারবে ত? আমার জন্য ভয় করাে না উইলী। মৃত্যু আমার পায়ের ভৃত্য, এইটুকু অর্জন করেছি বলেই আজ চিকাগাের মত সহরে বুক ফুলিয়ে হাঁটতে পারছি। চিকাগােতে নকল পাসপাের্ট তৈরী করতে বেশিক্ষণ লাগে না। দুঘণ্টার মধ্যে নকল পাসপাের্ট উইলীর পকেটে ম্যাক গুজে দিয়ে এক খানা বৃটিশ পতাকা উইলীর টুপিতে লাগিয়ে দিল। উইলী ইষ্ট ইণ্ডিজ পাড়াতে চলে গেল। যদিও সেই পাড়াট। চিকাগো নগরের এক অংশ তবুও সেখানে দারিদ্র্যের ছাপ ছিল। অনেকেই সেই পাড়াকে চিকাগাের গ্যাথ বলত, আর কেউ বলত দরিদ্র ইংলিশদের পাড়া। | উইলী কি করবে কিছুই ঠিক করতে পারছিল না। হঠাৎ তার মনে হল “হে মারকেটের কথা। মে দিবসের সৃষ্টি “হে মারকেটে হয়েছিল। উইলী গেল “হে মারকেটে। সেখানকার একটি উত্তম রেস্তোরাতে বসে কিছু খেল, তারপর “হে” মারকেটের অনেকগুলি দোকান এবং ব্যবসায়ের কেন্দ্র দেখল। সেও যেন একজন ব্যবসায়ী সেই ভাবেই চলছিল। অনেকক্ষণ মে দিবসের কথাই ভাবলে। মে দিবসের ঘটনাগুলি তার চোখে ভেসে উঠছিল। উইলী ভাবছিল, তাকেও আত্মবলিদান করতে হবে নতুবা নিগ্রো জাতের উন্নতি হবে না। পরক্ষণেই সে আবার মত বদলালে। সে ভাবলে, যদি মরতেই হয় তাড়াতাড়ি নয়। অন্তত ডিট্রয় গিয়ে কিছু করার পর মরব, এর পূর্বে নয়। কিন্তু কথা হল আমেরিকাতে নিগ্রোদের জন্য ন্যায় বিচার বলে কিছু নেই, এদেশে কি করে কি করা যায়? কারণে অকারণে যে দেশে নিগ্রোদের শাস্তি দেয়, ম্যাজিষ্ট্রেট যেখানে অন্যায়ের আশ্রয় দেয়, রাষ্ট্রের