পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৮ - ৭ আমেরিকার নিগ্রো করা হয়, কিন্তু পামেলার মাথার কাছে মাত্র দুডলারের দুখানা নােট রেখে যুবকেরা বেরিয়ে পড়ল। আমরা আমাদের দরজাটা আরও ভাল করে টেনে ধরলাম। শয়তানের দল আমাদের দিকে ফিরেও তাকাল না। তারা চলে গেল। আমরা দরজা খুলে মুক্ত বাতাসে পাহাড়ের দিকে চললাম। আমার বয়স প্রায় আঠার। এর মধ্যে কোন দিন পাহাড়ের দিকে যাইনি। এতনী আমাকে তার সঙ্গে যেতে বলেনি। আজ কোনরূপ প্রশ্ন না করে এন্তনীর সংগে পাহাড়ের দিকে বেরিয়ে পড়লাম। আমাদের ঘরের পেছনেই মস্তবড় পাহাড়। পাহাড়ের মাথায় বার মাস বরফ জমে থাকে। আমেরিকা পাহাড়ের কি নাম দিয়েছে জানি না। আমরা পাহাড়টাকে ব্যাক ডাের হিল বলি। আমরা আজ ঘরের পেছনের পাহাড়ের দিকে চলেছি। কোন্ উদ্দেশ্যে চলেছি আমি অন্তত জানি না, এনী জানে। কতক্ষণ যাবার পরই কর্মরত এনীর মায়ের সঙ্গে দেখা হল। এতনীর মা এক মগ, মদ খেয়ে সবে মাত্র কাজ আরম্ভ করেছেন, এটা তার দ্বিতীয় সিপ্ট। ত্রিশ সেন্ট বেশী পাবেন। মায়ের সংগে ছেলের দেখা হল। কেউ কথা বললে না, যেন অপরিচিত লােক। আরও একটু দূরে আমার মাকে কর্মরত দেখলাম। মা মদ খেতেন । নানারূপ কুৎসিত রােগ তার শরীরে ছিল, সেজন্য মদ সহ হত না। মদ খেলেই রােগগুলি লাফিয়ে উঠত এবং মাকে দংশন করত। মায়ের মুখখানা দেখে আর তার দিকে চাইতে ইচ্ছা হল না। মুখ ফিরিয়ে পাহাড়ের দিকে চল্লাম। | দুঘণ্টা চলার পর আমরা একটা ছােট্ট নদীতীরে পৌছলাম। নদীতে মাছ খেলছিল। নদী-তীরের তাজা ঘাস বাতাসে নরছিল।