পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


३३ আমেরিকার নিগ্রো। আমাদের দৈনন্দিন কষ্ট অন্তরকে পুড়ে ছারখার করছিল। আমরা চলছিলাম। এতনী আগে আর আমি পেছনে। | এন্তনী হঠাৎ পেছন দিকে তাকিয়ে বললে, ঐ যে পাহাড়টা দেখছিস, তারই গায়ে একখানা গ্রামে এক জন বড় লােকের জন্ম হয়েছিল। তিনি ছিলেন শ্বেতকায়, কিন্তু তিনি যা লিখেছিলেন সবই আমাদের সম্বন্ধে। তার লেখনী হতে যে সকল প্রবন্ধ বের হত, সেই প্রবন্ধ পড়ে উত্তরের ইয়াঙ্কীরা দক্ষিণের শ্বেতকায় বর্বরদের বিরুদ্ধে জেহাদ ঘােষণা করেছিল। সেজন্যই এখানে এসে মাথা হতে টুপি নামিয়ে ফেলি। তােমার যা ইচ্ছা তাই কর এনী, আমার হাট ও নাই, হাট নামাবার দরকারও নাই। শেতকায় মহাপ্রভু আমাদের দুঃখ দেখে যা লিখেছিলেন সেজন্য অন্তত আমি তাকে ধন্যবাদ দেব না। আমাদের দুঃখ তার প্রাণে আঘাত করেছিল। সেই আঘাত তিনি লেখার মাধ্যমে অপসারিত করেছিলন। সকল শ্বেতকায়েরই প্রাণ আছে, তাদের মন কেন আমাদের জন্য কাদে না? কাদতে পারে না। লেখক মহাশয় তার কর্তব্য করে গেছেন, সেজন্য যারা তাকে ধন্যবাদ দেয় তারাও বুদ্ধিহীন এবং যে সকল লেখক ধন্যবাদ পেতে চান, তারা হলেন একনম্বরের স্বার্থপর। তােমার মাকে কি কখনও ধন্যবাদ দিয়েছ ? অথবা তােমার মা কি তােমার ধন্যবাদের জন্য কাতর? মা হলেন মা। মায়ের' কর্তব্য মা করে যান, সন্তান ভবিষ্যতে মাকে সাহায্য করবে বলে মা সন্তান পালন করে না। এই ত দেখলি সেদিন ত মরিসনদের মা মারা গেলেন। মরিস এবং তার ভাইরা। এবং বােনদের মধ্যে কেউ তাকে হসপিটালে দেখতে যায়নি। তা বলে কি মরিসদের তাদের অভিসম্পাত করে গেছেন? মরবার পাঁচ