পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/২৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২৪ আমেরিকার নিগ্রো | 1 - 1 চলছিলাম পেছনে। পূর্বে চড়াই পথ ধরে চলছিলাম এবার নীচের দিকে নামতে আরম্ভ করলাম। অনেকক্ষণ নেমে একটি গুহার সামনে আসলাম। গুহাটার নাম ডাগআউট। মানে পাহাড়ের গা হতে অনেক পাথর খুলে নিয়ে একটি ঘরের মত করে গুহার আকৃতি করা হয়েছে। গুহার ভেতরে যদি আলাে না থাকত তবে কিছুই দেখতে পেতাম না। গুহার প্রবেশ পথে প্রকাণ্ড একটি দরজা। দরজা মােটা পাইন গাছের তক্তা দিয়ে তৈরী। নাড়তে বেশ অসুবিধা, তবুও দরজা করতে হয়েছে। দরজা না থাকলেও নয়। শীতের সময় পাহাড়ের উপর থেকে বরফ গুহার ভেতর গড়িয়ে পড়বার সম্ভাবনা থাকে। আমরা গুহার ভেতরে প্রবেশ করলাম। সেখানে সুন্দর মােমবাতি জ্বলছিল। অনেকগুলি লােক বই পড়ছিল। মাত্র কয়েক জন নিগ্রোকে দেখতে পেয়ে দুঃখিত হয়েছিলাম। ভাবছিলাম এখানকার পাঠক সবাই হবে নিগ্রো। আমার মন বােধ হয় দুর্বল, সেজন্য শ্বেতকায়দের দেখলে বিশ্বাস করতে ইচ্ছা হত না। ভাবতাম এরা প্রত্যেকেই শয়তান। এদের অকরণীয় কোন কাজ নেই। তেকায় লাইব্রেরীয়া আমাকে সকলের সংগে পরিচয় করিয়ে দিলেন। উইলী নামে একটি যুবকের সংগে করমর্দন করার সময় সে আমার হাতে এমন একটি ইঙ্গিতে করল যার মানে ঠিক করতে পারি নি। হাতটা তাড়াতাড়ি করে টেনে এর কাছে থেকে সরে পড়লাম। এতী অন্যান্য দিনের মত পুস্তকে মন সন্নিবেশ করল। আমি বই পড়লাম না। যারা বই পড়ছিল তাদের মুখাকৃতি ভাল করে দেখছিলাম। উইলীকে কোথাও দেখেছি বলে মনে হচ্ছিল। কিন্তু সে স্থানটি কোথায় ? অনেকক্ষণ চিন্তা করে মনে হল, আমাদের মনিবের এক বন্ধুর . । ।