পাতা:আমেরিকার নিগ্রো - রামনাথ বিশ্বাস.pdf/২৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মনুষত্ব লাভ বাড়ির আস্তাবলে তার সংগে দেখা হয় এবং এক রাত্র আস্তাবলের খড়ের গাদার মধ্যে উভয়ে কুণ্ডলী পাকিয়ে শুয়েছিলাম। যেন দুটি কুকুরের বাচ্চা। একটি বয়স্ক অপরটি ছােট। এক জনের শরীরের উত্তাপে অন্যজনের শরীর গরম রাখতে হচ্ছিল। কিন্তু আজ সে আমার হাতে যে ইঙ্গিত করল, সেটা কিসের? কতক্ষণ পর তার কাছে আবার গেলাম এবং জিজ্ঞাসা করলাম “তুমি কি বলতে চাও, উইলী? উইলী অনেকক্ষণ মাথা নত করে যখন মুখ উঠাল তখন মনে হল তার মুখে শয়তান বসে আছে। উইলী বললে, “আমার ইঙ্গিত তুমি আজ বুঝবে না, সময় মত বুঝবে। তােমরা কেমন আছ?” উইলীর কথার জবাব দিলাম না, কাছে বসলাম এবং সে কি বই পড়ে তাই দেখলাম অনেকক্ষণ। তারপর এন্তনীর হাত ধরে ভাগ আউট হতে বের হয়ে এসেই এনীকে জিজ্ঞাসা করলাম, তুমি উইলীকে চেন? নিশ্চয়ই ম্যাক, সে বােধহয় তােমার হাতে কোনরূপ ইঙ্গিতসূচক টেপা দিয়েছিল। হাঁ, তার মানে তােমার নিশ্চয়ই জানা আছে। নিশ্চয়ই, সে তােমার সংগে উপহাস করেছে মাত্র। আমরা নিগ্রো আমাদের সঙ্গে আবার উপহাস কি? এই ত এক বৎসর পূর্বে সে এবং আমি মনিবের বন্ধুর আস্তাবলের খড়ের গাদায় কুকুরের মত একে অন্যকে জড়িয়ে শুয়েছিলাম, সে কথা কি সে ভুলে গেছে। উপহাস আমাদের মনিবদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাক, আমরা উপহাস করার অধিকারী নই। এখন বলত, আমাকে এখানে নিয়ে আসার মানে কি? তুমি হয়ত বলবে বই পড়ে জ্ঞানার্জন হবে, .