পাতা:আয়ুর্ব্বেদ সারসংগ্রহম্‌ - তৃতীয় ভাগ.pdf/৬৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


আয়ুৰ্ব্বেদ সারসংগ্ৰহম | 'శ్రీ ৮ প্রকারাস্তরে ষোগ কথনের ভাষ{ । মূৰ্ব্ব, মূৰ্ব্বাভেদ, অকিনাদী, শুষ্ট, পিপুল, মরিচ ও গজপিপুল এই সপ্ত দ্রব্য (৩ চfর আন তিন রতি প্রত্যেকে লঙ্কয়। অৰ্দ্ধ সের জলে সিদ্ধ করিয়া অৰ্দ্ধ পোয়। থাকিতে নামাইয়া শীতল হইলে কাজির সহিত বা উষ্ণ জলের সহিত অথবা মদ্যের সহিত হ তোলা বা ১ তোলা পরিমাণে তিন ঘন্টার অস্তরে পান করাইলে মানব অামাতিসরি রোগ হইতে মুক্তি হয় । ৯ প্রকার স্তরে যোগ কথনের ভাষা ! শ্বেত সরিষা, দেবদারু বৃক্ষের ছাল, গুচফ শাক, অভাবে শুলফ বীজ ও কটুৰ্কী এই চারি দ্রব্য অৰ্দ্ধ তোলা পরিমাণে লইয়া চুলাতে ছাড়ীর মধ্যে অৰ্দ্ধ সের জলের সহিত স্থাপন করিয়া মৃদু জ্বলে মুসিদ্ধ করিবেক ৰথম দেখিবেক অৰ্দ্ধ পোয় অবশিষ্ট তৎকালে চুল হইতে ইrড়ী নামাইয়া বস্ত্ৰ খণ্ড দ্বার ছকিয়৷ পাত্রাস্তয়ে রাখিবে পরে রোগীকৈ দুই তোলা পরিমাণে বা এক তোল পরিমাণে লইয়া তিন ঘণ্টা অস্তরে কঁজির সহিত ব{ উষ্ণ জলের সহিত অর্থব মদ্যের সহিক্ত পান করাইলে রোগী অামাতিসার রোগ হইতে মুক্ত হয় । ১ঃ প্রকারীপ্তরে যোগ কথনের ভীষণ । গুজরাট এলাইচ, লোধবৃক্ষের ছাল, কুড়বৃক্ষের মূল, হরিত্রাবুক্ষের মুল, দারুহরিদ্রা কাষ্ঠ, কুড়চিবৃক্ষের মূলের ছাপ অভাবে বৃক্ষেরছাল ও যব এই সপ্ত দ্রব্য চারি জানা তিন রতি পরিমাণে লইয়া অর্থ সের জলের সহিত