প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:আর্য্যদর্শন - দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/১৫৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


| শ্রাবণ ১২৮২ ৷ রামপ্রসাদ সেন। X86: श्हेब्रहिन, विश्व रहेश गरे आन চারিদিকে প্রতিধ্বনিত করিয়াছিল। তিনি যাবতীয় সামান্য পদার্থকে ধৰ্ম্মণীত । मोड করিতে শিক্ষা দিয়াছিলেন। আজিও আমরা সেই সমস্ত যৎসামান্য পদার্থের সমীপে উপনীত হইয়া রামপ্রসাদের সঙ্গীদ্ধে যেন উদ্বোধিত হইতে থাকি ; উদ্বোধিত হইয়া গাহিয়া উঠি – “ম। আমায় ঘুরাবি কত ? কলুর চোকঢাকা বলদের মত। ভবের গাছে বেঁধে দিয়ে মা, পাক দিতেছ অবিরত। তুমিকি দোষে করিলে আমায়, ছ’টা কলুর অমুগত। দুর্গ দুর্গ দুর্গ বলে, তরে গেল পাপী কত । একবার খুলে দেমা চখের ঠুলী, দেথি শ্ৰীপদ মনের মত। , কুপুত্র অনেকেই হয় মা, কুমাতা নয় কখনো ত। রামপ্রসাদের এই অাশা মা, অন্তে থাকি পদানত ।” | “মন তুই কৃষি কাজ জানিস না। এমন মানব জমিন রইলো পতিত, আবাদ করলে ফলতো সোণ । কালীর নামে দেওরে বেড়া, ফসলে তছরূপ হবে না । সে যে মুক্তকেশীর শক্ত বেড়া, . তার কাছেতে যম ঘেসে না । | অদ্য অন্ধ শতান্তে বা । এখন আপন ভেবে, যতন করে, চুটিয়ে ফসল কেটে নে না। গুরু রোপণ করেছেন বীজ, ভক্তি বারি তায় সেঁচ না। ওরে, এক যদি না পারিস তুই, রামপ্রসাদকে ডেকে নে না। " রামপ্রসাদের যে বাস্তবিক অসাধারণ প্রতিভা ছিল, তাহ তাহার জীবনের একটি ঘটনায় প্রতিপন্ন লয়। তিনি যখন | মুহুরীগিরিতে নিযুক্ত ছিলেন, তখন র্তাহার কল্পনা ও প্রতিভা অপে অপে বিষ্ণু ৱিত হইতেছিল। কোন সুধীবর সম্বন্ধে যে কথা উল্লিখিত আছে, যে র্তাহাকে যদি স্যালীস্বরীর প্রসারিত ক্ষেত্রে পরিবর্জন করা হইত, তথায়ও তিনি যশের পথ খুজিয়া লইতেন ; রামপ্রসাদ সম্বন্ধেও সেই গাথাটি প্রযুক্ত করা যাইতে পারে। রামপ্রসাদ ঘোর বিষয়ীর জমিদারী সেরেস্তায় মুহুরীগিরিতে নিযুক্ত হইলেও তিনি মুক্তি এবং নৈসর্গিক কল্পনাশক্তির নির্গমের সরণি প্রকৃষ্টরূপে উদ্ভাবন করিতে ছিলেন। সেখানেও তবিলদারের নিকট প্রভূত ধনরাশি সঞ্চিত দেখিয়া পার্থিব ধনের অসারত, | ও তবিলদারদিগের বিশ্বাসঘাতকত্তা । কেমন চমৎকার একটি গীতে প্রকটত করিয়াছেন 3--س-- - “আমায় দেও মা তবিলদারী, : स्राभि निभङ्शब्रांम महे भझौ ” আবার যখন তিনি গাইলেন - পদরত্নভূণ্ডির সবাই লুট,