প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:আর্য্যদর্শন - দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/২৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বালিকা পাণিগ্রহণ করিয়া আমরা আৰ্য্যদর্শন । বৈশাখ ১২৮২। { তাহাকে যেন পিঞ্জরবদ্ধ করিয়া রাখি । বহুকাল ধরিয়া অন্তঃপুর মধ্যে তিনি অবগুণ্ঠনবতী রহেন। শ্বশুরালয়ে অনেক | দিন অতিবাহিত না করিলে দেশের রীতানুসারে কাহারও সহিত র্তাহার বাক্যা- বলিতে’ হইবে। श দিগের এতদূর | লাপ করিবার যে নাই। পুরুষজাতীয় অধীনতা তাহাদিগের আবার সত্ত্ব কি ? त्कान सुक्र बनत्र जडि कथा बाडी |पिशल्ला वनगमाप्वत्व क्लिदै अविथङ नप्र, কওয়া দূরে থাক, তাহাদিগের সমক্ষে অবগুণ্ঠন বিমুক্ত করিয়া যাইতেও পারেন জায়ার ছায়া স্পর্শ করিলে জ্যেষ্ঠ ভ্রাতাকে প্রায়শ্চিত্ত করিতে হয়। তদ্রপ ভ্রাতৃশ্বশুরের কোন দ্রব্য স্পর্শ করিলেও ভ্রাতৃবধূর প্রায়শ্চিত্ত করিবার বিধান আছে। গুরু জন যতক্ষণ অবরোধ মধ্যে অবস্থান | করিবেন, ততক্ষণ নববধূর উচ্চ রবে কথা কওয়াও দূষণীয়। একলা এক দণ্ড অপর পুরুষের সহিত কথা কওয়া তাহার পক্ষে নিতান্ত নিন্দনীয়। কথা কওয়া দূরে থাক, | সম্মুখে যাওয়াও বৈধ নহে। বাহিরের পরিশুদ্ধ বায়ুসেবন করিবার নিমিত্ত গবাক্ষ | দ্বারে ক্ষণকাল অবস্থান করিলে তাহার | অপযশ হয়। পল্লীর মধ্যে র্তাহার কোন সম্বন্ধ নাই। জনসমাজ কেমন তাহ | নারীজাতি কিছুই অবগত নহে। প্রেম| বিদ্বেষ-পরতন্ত্র হইয়া আমরা নারীজাতিকে निडाड बौन नििश। द्वात्रिंशन् ि। ठाः হারা কেবল জ্ঞানে অন্ধ নহে, পৃথিবীর জীবন পরিগ্রহ করিয়া, অন্ধকারেই সমগ্র . ন | অসাবধান বশতঃ কনিষ্ঠ ভ্রাতৃ- চারিট উপদেশ যাহাদিগের জ্ঞানের পরি | স্ত্রীজাতি বিশ্রদ্ধ আলাপ করিতে পায় না." শ্বশুরালয়ে বঙ্গবধূর আর কেহই নাই। স্বামী সমস্ত বিষয়েই অন্ধ। তাহারা অন্ধকারে | জীবন অতিবাহিত করে। জনসমাজের সহিত যাহাদিগের কোন সম্পর্ক নাই,চির | দিন একাকিনী গৃহমধ্যে যাহাদিগের পশু- | বং অবরুদ্ধা থাকিতে হয়, তাহাদিগের জীবন নিতান্ত অধীন ও জড়বং নিশ্চেষ্ট যাহাদিগের ভাল মন্দ এবং সদসৎ বিবে: I চন। কিছুই নাই, স্বার্থপর পুরুষের দুই সীম, গৃহ ধামের একটী কুটীর মাত্র যাহাদিগের কার্য্যক্ষেত্র, যাহাদিগের কোন শক্তি নাই তাহাদিগের অধীন জীবনের গৌরব কি ? ক্রীত দাসীর ন্যায় যাহার পরাধীনতার শৃঙ্খলে আবদ্ধ থাকিবে তাহাদিগের কাৰ্য্যের নিন্দ অথবা প্রশংসাই বা কি ? স্বামী ভিন্ন কাহারও সহিত | অন্যের সহিত বিশ্ৰব্ধ আলাপনে তাহাদি- i গের শত সহস্র প্রতিবন্ধক। স্বামী ভিন্ন | যে প্রকার হউন, তাহার নিতান্ত আশ্রিত ও দাসীর ন্যায় অধীন থাকিতেই হইবে। কারণ স্বামী ভিন্ন তাহার কোন গতি । নাই। স্বামীকে পরিত্যাগ করা স্ত্রীর সাধ্য নহে, কিন্তু স্ত্রীকে পরিত্যাগ করি: য়াও স্বামী অনায়াসে ভদ্রসমাজে | পূজনীয় হইতে পারেন। স্বামী অনায়াসে পরিত্যাগ করিয়া রাখিতে পারেন 1, বলিয়া, পাছে তাহার বিরাগভাজন হন, { ।