প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:আর্য্যদর্শন - দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/৩৯৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


o |Jo----- ‘অগ্রহায়ণ ১২৮২ ৷ প্রাপ্ত গ্রন্থের সংক্ষিপ্ত সমালোচনা । ○ッ> उँीव्र गtत्र ७३ नकिनन ८ग, पनि अग्न | লাভ হয় ত ভারতরাজ্য আমার এবং वनश्नभक्षौ ऊँ द्र- এই কথা শুনিয়া পৃথু নিতান্ত অধীর হইয়া পড়িলেন এবং সামুনয়ে যবনরাজের নিকট এই ভিক্ষা চাহিলেন যে দুরাত্মা পুষ্পকেতু অনঙ্গমঞ্জরীর শরীর স্পর্শ করতে না করতেই তাহার মস্তক যেন তাহার শরীর হইতে বিচ্ছিন্ন হয়। “দুরাত্মা পুস্পকেতু অনঙ্গমঞ্জরীর শরীর স্পর্শ করতে না করতেই”—এই কয়েকট হৃদয়ভেদী শব্দ প্রাপ্তসংজ্ঞ অনঙ্গমঞ্জরীর কর্ণকুহরে প্রবিষ্ট হইল। অমনি তিনি বলিয়া উঠিলেন “কি ! আমি জয়চন্দ্রের বীৰ্য্য-সস্তব ক্ষত্রিরা নই? পুষ্পকেতুর সাধ্য কি যে আমার ছায়াও স্পর্শ করে ! যেন সিংহই দৈববশে ব্যাধের বাগুরায় বদ্ধ হয়েছে, তা বলে শৃগালের কি শক্তি যে, সে তৎপত্নী সিংহীর অঙ্গ স্পর্শ করবে ! ছি নাথ! তুমি ভাৰ্য্যার দুর্দশ দেখে আত্মবিশ্বত হয়েছ ? কৈ সে জুরাত্মা কোথায় ? সে দুরাচার কাপুরুয় তোমার অপকার করবার জন্য চিরকাল পরের সাহায্য গ্রহণ করেছে।” অনঙ্গমঞ্জরী এইরূপে বলিতেছিলেন এমন সময় সেই সৈনিকবেশী পুষ্পকেতু তা হাকে উদ্দেশ করিয়া বলিল—“রাজপুত্র! স্থর্যাকে গ্রাস করিবার জন্য রাহু কি অমাবস্যার আশ্রয় লয় না?—এ আর সেই ক্ষুদ্র চেত দম্য নয়,ষে অর্থে বশীভূত করবে।” ছদ্মবেশী পুষ্পকেতুর এই কথায় পৃথু ও অনঙ্গমঞ্জরী পুষ্পকেতুকে চিনিতে পারি লেন। তখন ক্রোধে তাহাদিগের হৃদয় বিকম্পিত হইতে লাগিল। শরীরে দ্বিগুণতররূপে শোণিত স্রোত প্রবাহিত হইতে লাগিল। অনঙ্গমঞ্জরী-ক্রোধ সম্বরণ করিতে না পারিয়া ক্ষত্রিয়াধম পুষ্পকেতুকে এই বলিয়া তিরস্কার করিতে লাগিলেনঃ– “আরে দুর্জাত ! ক্ষত্রিয়াধম ! * * * * আমিই যেন তোর মনে কষ্ট দিয়েছি, এই জন্মভূমি ভারত ত তোরে বক্ষঃস্থলে ধারণ করে আছেন, তুই কি বলে পদতলে দলিত হবার জন্য মাতাকে | রিপুহস্তে অর্পণ করলি ? ধিক মূঢ় । ভেবে দেখ সামান্য বৈরনযাতন করতে গিয়ে তুই কি সৰ্ব্বনাশ করে বসেছিস । আমি তোরে পরামর্শ দিচ্ছি, সুবোধের ন্যায় এখনও হস্তিনাপতিকে বন্ধনমুক্ত কর, দুজনে মিলিত হয়ে সাধারণ শক্র হতে জন্মভূমিকে উদ্ধার কর? এখনও চৈতন্য হ’ল না ? তুই সাহায্য করতে না পারিস্ উদাসীন থাক, একা হস্তিনাপতিই যবন হ’তে ভারত ভূমি উদ্ধার করবেম-" এ সকল সারগর্ভ উপদেশ–পুষ্পকেতুর কৰ্ণে স্থান পাইল না। তাহার ছদ্ধমনীয় বৈরনির্যাতনাম্প হা এখনও পরিতৃপ্ত হয় নাই। পিশাচ-পৃষ্ঠুর অঙ্গবন্ত্র উন্মোচন পূৰ্ব্বক তাহাতে জলন্ত লৌহের দাগ দিতে আদেশ কৰিল। হতভাগিনী অনঙ্গমঞ্চর আর সহ করিতে না পারিয়া TarunnoBot (আলাপ)-F---