প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:আর্য্যদর্শন - দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/৪২৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


== f পৌষ ১২৮২৷ এ দেশের কৃষির উন্নতি । ബു 8०१ জন্য পুরস্কার পাইয়াছেন। যাহা বলা হইল তাহা হইতে স্পষ্ট প্রতীত হইবে যে ইংলণ্ডে মহারাজী হইতে আরম্ভ করিয়া কেহই কৃষিব্যবসায় ঘৃণাৰ্ছ মনে করেন না। ইউরোপের অন্যান্য দেশেও वृद्धि छाडेक्के जस्त्रब कब्रिग्रा गल्लाख् ব্যক্তিরা স্বীয় নামের স্বার্থকতা করেন । যে সকল দেশে কৃষির এইরূপ আদর, তথায় যে তার উন্নত অবস্থা হইবে, কিছুই আশ্চৰ্য্য নয় । বিলাতে অতিবৃষ্টি ও অনাবৃষ্টি জনিত अनिष्टॆ नेित्रांङ्ग८१द् ५ौि खठि श्मानि উপায় উদভাবিত হইয়াছে। এই উপায়ট ব্যয়-সাপেক্ষ বটে ; কিন্তু ইহা হইতে উৎ কৃষ্টতর উপায় এপর্যন্ত আবিষ্কৃত হয় নাই। ভূমির ২৩ হাত নীচে আর ২০৩০ হাত অস্তরে নালা কাটিয়া তাহাতে নল পাতিয়া যায় ; তার পরে ঐ নালা মাটী দিয়া ঢাকিতে হয় । এইরূপে সমস্ত ক্ষেত্রের নীচে নালা ঢাকা থাকে। বৃষ্টি হইলে মৃত্তিক প্রবেশ করিয়া জল ঐ নলে পড়ে, এবং তাহা দ্বারা বাহির হইয়া যায়। মৃত্তিকায় অনেক দিন জল স্থির হইয়৷ থাকিলে শস্যের অত্যন্ত অনিষ্ট হয়। যদি ভূমির নিম্নস্থ নল দ্বারা জল নির্গত হইয়া যায়, তাহা হইলেও মৃত্তিকা যথেষ্ট আদ্র। থাকে। আমাদের দেশে অনেক সময় এত বৃষ্টি হয় যে জলে মাটীর উপরিভাগ भूहेब्र शहेब याग्न। ७३ उं★ब्रिड़ाrश्र যত সার দেওয়া যায়, তাহ চলিয়া গেলে নীচে নল থাকে, তাহা হইলে আর এই অনিষ্ট হয় না। এইরূপ ঢাকা নালার আর এক উপকার এই—শীতকালে রৌদ্রের উত্তাপে মাটী ফাটিতে থাকে, এবং যত গ্রীষ্ম বাড়ে, ততই মাটী শক্ত হইয়া আসে। এই মাটীর চাস করা সামান্য কষ্ট নয় ; গৰ্ত্তেতে লাঙ্গল ঠেকিয়া যায়, আর কার সাধ্য যে শক্ত মাটী ভাঙ্গে ? যদি মাটীর নীচে নালা থাকিত তাহা হইলে আর মাটী এত ফাটিত না । পুনঃ পুন: পরীক্ষা দ্বারা দেখা গিয়াছে যে বৃষ্টি না হইলে রৌদ্রে যে সকল ভূমিতে ঢাকা নালা আছে তার শস্য তত পুড়িতে পারে না। আবার ঐ নালার নল দ্বারা বৃক্ষাদির মূলে জল দেওয়া যায়। এইটী জল সেচন করিবার অতি সহজ উপায় । এক বিঘায় এইরূপ ঢাকা নালার জন্য ১৩১৪ টাকা ব্যয় হয়। এই কাজটা একবার পরিপাট্র মত করিলে চিরকাল থাকিয়া যায়। বিলাতে ভূস্বামীরাই ইহা করিয়া দেন। আমাদের দেশেও তাহা হওয়া উচিত। জমিদারের এই জন্য গবর্ণমেণ্ট হইতে মাসিক ॥• স্কুদে টাকা ধার করিতে পারেন। প্রতি বিঘায় যদি ১৩১। ১৪১ টাকা ব্যয় হয়, তার মুদ বৎসরে (শত করা মাসিক ১১ টাকা হিসাবে) ১া কি ১% হইবে। আমার দৃঢ় বিশ্বাস যে ঐন্ধপ নালা করিলে প্রতি বিঘায়,বৎসরে গড়ে পূৰ্ব্বাপেক্ষ ৩, ৪১ টাকার,অধিক শসা জন্মিবে।