প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:আর্য্যদর্শন - দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/৪৬৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


----- T-TE- --ਜੜ੍ਹਾਂਨ਼r 88b" আর্য্যদর্শন মাঘ ১২৮২ । ২০০ টাকা গণে দিলি, পরে বাকী Éाक। "बिनन। डेखोश बल মস্তকে জড়াদিয়া বয়নস লয়েছিস ; এ সকলের ইন্তে জড়াইতে ঐ অভ্যাগত ব্যক্তির ; : ,াম ও জয় আলি ঠাইদী নবিস। সম্মুখে ক্ষুদ্র এক সেলাম করিয়া मैड़िा| পরে তুই জমী দখল লয়ে দখলীকার हैंश । আছিস তাহার স্বাক্ষী মকবুল ও বাকর উভয়ের আকার প্রকার সম্পূর্ণ বিস আলি, চোয়াজিদ চাষী। মৌলভির | দৃশ। অভ্যাগত দীর্ঘকায়, শুভ্র, সন্তান্ত পুত্র মেহের আলি শিশু, সে টাকাই বা | বেশধাৰী মোক্তার খৰ্ব্বাকৃতি, উত্তর, পাইবে কোথা, কি করেই বা নীলাম মলিনবেশযুক্ত। একের শ্বেত বিস্তাকিনিবে ? আর তাহার দখল নাই, বয় | রিত শ্মশ্র প্রকৃত আরব আদলের নামা নাই। আর মৌলভির সঙ্গে যে | আনন শোভমান ও শ্রদ্ধাবান করিয়াছে ; তোর বিবাদ আছে তাহার স্বাক্ষী অাব | মোক্তারের মসী ফ্যাসনের বিত্র মুখ দুল ও আকবর আলি ও আমি। আর গাছকতক ঘুরে পশ্বাকৃতি ও অশ্রদ্ধেয় যত বিশেষ কথা, জিজ্ঞাসা করিবে, তুই ৷ হইয়াছে। অভ্যাগত ভদ্রোচিত স্থির বলিস তোর গমস্ত ফজর আলি জানে, নয়নে আপাদ মস্তক স্বীয় ঘৃণ্য সমকক্ষকে তুই বিদেশে থাকি জানিস না। কি | দেখিলেন, ভয় ও ঘৃণা যুগপৎ আননের বলিৰি বল দেখি ? : , ভাবে প্রকাশিত হইল। মোক্তার সে মেহের চোক গিলিতে গিলিতে কতক দৃষ্টি সহ্য করিতে অক্ষম, চক্ষু মিটু মিট কতক বলিল, মোক্তার সংশোধন করিতে | করিতে করিতে অধোবদনে রহিল। লাগিলও সাহস দিতে লাগিল । মোক্তার | অভ্যাগত কহিলেন, “আসগর আলি, একটা বৃক্ষের শিকড়ের উপর বৃক্ষে । এই পাহাড়ে তুমি গোচরণ ও ইন্ধন ঠেস দিয়া এবং পথকে পশ্চাৎ করিয়া | বহন করিতে, স্মরণ হয় ? এই মসজিদে বসিয়া ছিল ; মধ্যে মধ্যে বক্র হইয়াকে | যেরূপ কাতর ভাবে আমার আশ্রয় চাহ আসিতেছেন আদিতেছে দেখিতে ছিল। মনে হয় ? আর এই বৰ্দ্ধিত দেহ, এই এমত সময় একটা সম্ভ,স্তি ব্যক্তি অনুচর | বিদ্যাবুদ্ধি, এই অহঙ্কত মোক্তারী কাহা সহ পথে দৃষ্টিগোচর হইলেন। ঐ ব্যক্তি | কর্তৃক মনে হয় ? বল দেখি বৃক্ষান্তরাল হইতে মোক্তারের মুখচক্র | আসগর, পিতার ন্যায় তোমাকে স্নেহ দৃষ্টে ংিরক্তি ভাবে মুখ ফিরাইয়া অগ্রসর করেছি কিনা ?” হইলেন। উদ্যানের কিঞ্চিং দক্ষিণে আসগর মুখটা তুলিলেন, বসন্তচিহ্নে দাড়াইয়। জনৈক অনুচরদ্বারা মোক্তারকে | বিকৃত নাসিকায় আলোক পাতে কদৰ্য্য - | མྱ་ཐ་ཙིས། পাঠাইলেন। মোক্তার অনিচ্ছ । মূৰ্ত্তি বিকাশিত হইল, মুখটা প্রকৃতিঅনু | স্বত্ত্বেও আহান অবহেলন করিতে | যায়ী সঙ্কুচিত করিয়া কহিলেন “আপনি