প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:আর্য্যদর্শন - দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/৫১২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


| कछु१ ०२४२ ।। কবি ও কাব্য সমালোচনা । ৪৯৫ মামীদেই বাতুলা কেবল হাসি৷ নিরস্ত থাকিতে পারিন ; এমন মহতী বুদ্ধির ভ্রংসতা দর্শনের পরক্ষণেই সহানুভূতি দ্বারা দুঃখ আসিয়া উপস্থিত হয়।সেই রসিকতাই উৎকৃষ্ট রসিকতা, সহানুভূতিই যাহার শেষ ফল। এতদ সম্বন্ধে স্বপ্রসিদ্ধ “True humor springs not more from the head, than from the heart; it is not contempt, its essence is love; it issues not in laughter, but in still smiles which সার প্রকৃতি ; ইহার উদাহরণের তাদৃশ প্রয়োজন নাই । খণ্ডকাব্যের স্থল কয়েকটা ৰিষয় একরূপ বলিলাম, এক্ষণে মহাকাব্যের স্থল বিষয় কিছু বলিব। # পূৰ্ব্বে বলা হইয়াছে, কোন নায়ক নায়িকার স্বকীয় ক্ষেত্রের ঘটনাবলি লষ্টয়া যে উপাখ্যান রচিত হয়, তাহার ; নাম খণ্ড কাব্য ; আর সাধারণ ক্ষেত্রের ব্যক্তি সাধারণের কোন বিশেষ প্রসঙ্গ লইয়৷ যে আখ্যান রচিত হয়, তাছাব নাম মহাকাব্য । মহাকাবা সকলই কবি কল্পনার মুমহং ও গৌরবোজ্জল কীৰ্ত্তি; ইহার মহত্ত্ব ও গৌরব সাধনের নিমিত্ত o . কবি ব্যক্তিবিশেষ হইতে জনসাধারণের পক্ষ অবলম্বন করেন; এবং ব্যক্তিবিশেষের - סיטי * *.*. লেখক"কারলাইন’ একস্থানে কহিয়াছেন— lie far deeper” i 24 HER È FÈ | আমরা আখ্যানমূলক শক্তি হইতে জনসাধারণের শক্তি, তাহার উপর মানবীয় শক্তির অতিরিক্ত অমাতুষিক শক্তির আকর দেব-প্রকৃতির পর্যান্ত । আবির্ভাব লরিয়া মহন্ধ্যাপারের আড়ম্বর । করিয়া ফেলেন। আকাজক্ষ স্তব্ধ হইয়। আর কোন দিকে তাহার পথ খুজিয়া পায় না, যেহেতু মহাকাবোই কবি-কল্পনার মহৎ হইতে মহৎ এবং অতীত হইতে অতীত বিষয়ের স্বষ্টি দেখাইয়া থাকেন; আকাজার এই খানেই পূর্ণ পরিতৃপ্তি, এই নিমিত্ত আমরা মহাকাব্যকে কাব্যোন্নতির চরম সোপান বলিতে পারি। ইহার রচনায় মানবীয় জ্ঞানভাণ্ডারের পূর্ণ পরিচয় ও কল্পনার উচ্চতম উড়ডয়নের প্রয়োজন । কবি মহাকাব্য রচনায় কেবল মানবপ্রকৃতির জ্ঞান লষ্টয়াই কৃতকাৰ্য্য হইতে পারেন না ; দেশ কাল ভেদে সামাজিক রীতি, নীতি, বিদ্যা, ধৰ্ম্ম, বিশ্বাস এবং ভূৰ্বত্তান্ত পর্যন্ত ও র্তাহাকে জানিতে হয়, কারণ ইহারই উপরে তাহার কল্পনা 'ऋाभिड इहेछ। थारक। मानद श्रडाद আপন আপন ক্ষেত্র পরিত্যাগ করিয়া সাধারণ ক্ষেত্রে কিরূপ কাজ করে তাহাই দেখান তাহার মূল উদ্দেশ্য, এই হেতু তাহাকে বহুতর চরিত্র সমবেত করিতে হয়, এই সকল চরিত্রের প্রত্যেকেরই প্রকৃতিগত বিবিধ বৈচিত্র্য অথচ সেই বৈচিত্র্য সকল একই উদ্দেশ্যে কিরূপ সংযত, এবং তাহার তারতম্যের | কি ফল কবি তাহ দেখাইয়া থাকেন। ইউরোপের মধ্যে সৰ্ব্বপ্রধান মহাকাব্য হোমর প্রণীত “ইলিয়দ’ ; ভারতবর্ষীয়