প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:আর্য্যদর্শন - দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/৫২৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Q o b অাৰ্য্যদর্শন । । ফাঙ্কণ ১২৮২ ৷ =-ro বি মিশ্রিত। এই যন্ত্রণা হইতে মানবের নিস্তার নাই। যে দুই এক জন हेशब्र डोशे ढुख श्डेड निशूडि भान, তাহারা পুণ্যবান বলিয়া প্রখ্যাত হন। গুহাদিগের পুণ্যের শরীর, স্বতরাং সজ্ঞানে স্বৰ্গ প্রাপ্তি হয়। কিন্তু পাঠক ইচ্ছা করিলে তুমি আমিও সচ্ছদ হাসিতে হাসিতে অজ্ঞাতভাবে মুহূর্ব মধ্যে মহানিদ্রায় अउिछूळ इहैrउ পারি। ইহাতে কোন পুধাবলের আবশ্যকতা করে না । অনেক রূপ মৃত্যু আছে, যাহাতে এই অভীষ্ট সিদ্ধ হইতে পারে। পাঠক ! আমি জানি তুমি যদি বুদ্ধিমান হওত দেখাইয়া দিলেও সে পথ অবলম্বন করিবে না। কিন্তু তথাপি জানায় অনেক লাভ আছে। মানবের প্রকৃতি এরূপ যে কোন বস্তুর অভাব বোধ না হইলেও তাহা করায়ত্ত থাকিলে মন সুস্থ থাকে এবং নিরভাবেও অভাব বোধ হয় ও মন তঞ্জনিত ক্লেশ অনুভব করে । এই দুঃখময় সংসারে যখন ইচ্ছা হইবে তখনই অক্লেশে মৃত্যু যন্ত্রণা ভোগ না করিয়া এ দুঃখের অবসান করিতে পারি હાફે জ্ঞান কতক সান্থন। কিন্তু পাঠক ! শুদ্ধ জ্ঞানবলে বলীয়ান থাকাই ভাল, জ্ঞান কার্য্যে পরিণত করিবার প্রয়োজন যেন না হয় | - - অনেকের সংস্কার আছে যে মৃত্যুর কারণ যত ক্ষণস্থায়ী হয় যন্ত্রণ ততই অধিক is ইচ্ছ। হইলে পাইব না এরূপ মনে হইলে । হয়। এই সংস্কারানুসারে তাহারা ভাবেন | इव। --- যে বজাঘাতে যাহাদের মৃত্যু হয় তাহার অতি তীব্র আঘাত অনুভব করে। কিন্তু ইহা ভ্রম। মস্তিষ্ক আমাদের সকল অমুভূতির আধার। শরীরে কোন আঘাত লাগিলে শিরা সকল দ্বারা সেই আঘাত মস্তিষ্কে চালিত হয় এবং তখন আমরা সেই གསར་རྙེད་དག་་་ করি। যদি কোন আঘাত, যে কোন কারণেই হউক, মস্তিষ্কে উপনীত না হয়, আমরা সে আঘাতের সংজ্ঞা লাভ করিতে পারি না । অনেকে বাজি করদিগের নিকট দেখিয়া থাকিবেন যে দুইটী জল-পরিপূর্ণ গ্লাসএরূপ পরিপূর্ণ যে ঈষৎ নাড়িলেই জল পাত্রচু্যত হইয়া পড়ে—কিয়ং ব্যবধানে | কোন সমতল ক্ষেত্রে রাখিয়া একটা কাষ্ঠদগু ঐ গ্লাস দ্বয়ের উপর স্থাপন করতঃ ঐ কাষ্ঠদণ্ডের মধ্যস্থলে যষ্টি দ্বারা সজোরে আঘাত করিলে ঐ কাঠদওঁ দুই খণ্ড হটয়া দুই দিকে পড়িয়া যায় কিন্তু গ্ল্যাস হইতে | এক বিন্দু জলও বিচ্যুত হয় না। ইহার কারণ এই যে যষ্টির আঘাত কাষ্ঠদণ্ডের মধ্যস্থল হইতে প্রাস্তদেশে সঞ্চালিত না হইলে গ্র্যাসের জল বিচ্যুত হইবার সম্ভাবনা থাকে না। কিন্তু আঘাত এত বেগে প্রদত্ত হয় যে প্রান্তে সঞ্চালিত হইবার পূৰ্ব্বেই কাষ্ঠদও ভগ্ন হইয়া পড়িয়া যায়। এই রূপ আহত অঙ্গ হইতে আঘাতের জ্ঞান মস্তিষ্কে নীত হইতেও সময় লাগে { এবং এই কারণে মস্তিষ্ক হষ্টতে দূরবর্তী | অঙ্গের আঘাত ঈষৎ বিলম্বে অনুভূত