প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:আর্য্যদর্শন - দ্বিতীয় খণ্ড.pdf/৫৭৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


= চৈত্র ১২৮২। '• অন্যান্য বিজ্ঞানাপেক্ষ তড়িৎ-বিজ্ঞানকে আধুনিক বলিতে হইবে। কিন্তু আশ্চ র্ঘ্যের বিষয় এই যে তড়িৎপদার্থের নিজ | দ্রুতগামিতার বেগেই যেন উক্ত বিজ্ঞান অতি অল্প কালের মধ্যে বর্তমান উন্নত অবস্থা প্রাপ্ত হইয়াছে। ভৌতিক বিজ্ঞান মধ্যে ইহার কিছু সামান্য প্রধান্য নহে। তড়িৎবলের অদ্ভূত কাৰ্য্য সমূহ যাদৃশ বিস্ময়জনক তেমনি মানব-হিতকর । | কোন কোন বৈজ্ঞানিক এরূপ আশা করিয়া থাকেন যে, এই বিদ্যার আরও উন্মত অবস্থায় মৃত দেহে জীবন সঞ্চার পৰ্য্যন্তও সম্ভবপর হইবে। এরূপ বিজ্ঞানের ইতিবৃত্ত নিঃসন্দেহ আদরণীয় হইবে, এই আশায় আমরা ইহার স্বত্রপাত হইতে বর্তমান উন্নতি পৰ্য্যস্ত সমস্ত বিষয়ের ইতিবৃত্ত সংক্ষেপে প্রকাশ | করিতে প্রবৃত্ত হইলাম । খৃঃ পূঃ ৬০০ ছয় শত বৎসরের পূৰ্ব্বে ইতিবৃত্তে তড়িৎ-কার্য্যের কোনও উল্লেখ দেখা যায় না। কথিত আছে ঐ | সময়ে even Sagos মধ্যে মিলিটস, নিবাসী | থেলস —Thales সৰ্ব্বপ্রথম তাড়িত তড়িৎ-বিজ্ঞানের ইতিবৃত্ত । গ্ৰীসদেশীয় সপ্ত সাধু ' The ® ® ጫ হত্যা, নিঘুরণের উপায় কি ?-পরিত্যক্ত শিশুদিগকে কে রক্ষা করিবে ? শ্ৰীক্ষেত্রমোহন সেন গুপ্ত। ミ述う-トーーーーー তড়িৎ-বিজ্ঞানের ইতিবৃত্ত। তরলের কার্ঘ্য প্রত্যক্ষ করেন। তিনি । cनcवन cष छू१-भनि-Amber इर्दन । করিলে অতি লঘু পদার্থকে আকর্ষণ করে। এতদ্ব্যতীত অন্য কোন তড়িৎ কাৰ্য্য তিনি দেখেন নাই। উক্ত আকর্ষণের কারণ তিনি এই নির্দেশ করেন যে, l এম বার একপ্রকার সজীব পদার্থ হইবে । ঘর্ষণ দ্বারা উহা কার্যকর হইয়া উঠে। এইরূপে উত্তেজিত হইলে উহা একপ্রকার অতি স্বক্ষ, অদৃশ্য এবং আটাময় । বাষ্প ক্রমিকু বিনির্গত করিতে থাকে। ঐ বাপ কিছুদূর যাইয়া পুনরায় অনবরত ভূণ-মণিতে আসিয়া প্রবিষ্ট হইতে থাকে। পথিমধ্যে লঘুপদার্থ সমূহ উহার আটাতে ংলগ্ন হইয়া উহার সহিত তৃণমণিতে নীত হয়। - থেলসের ৩• • শত বৎসরের পর ইতিবৃত্তে'তাড়িতাকর্ষণের দ্বিতীয় উল্লেখ এই দেখিতে পাওয়া যায় যে, থিওফ্লষ্টস Theophrastus. লিন্‌কিউরিয়ম, * ब ।

  • ধুনা বা রজনের ন্যায় আটাবিশিষ্ট । এক প্রকার উদ্ভিদ পদার্থ বিশেষ । ইহ | প্রায় সমুদ্র তীরে পাওয়া যায়। ইউরোপে

ਜੜ੍ਹਾਂ