পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (চতুর্থ বর্ষ).pdf/১০০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জ্যৈষ্ঠ, ১৩২০ ৷৷ শিববাড়ীর বুদ্ধমূৰ্ত্তি । baru KO) · তবুও কপোতাক্ষ ভৈরবের কুলে বহুদূর পর্য্যন্ত যে প্রাচীন কালে আৰ্যসভ্যতা প্রসার লাভ করিয়াছিল, তাহার যথেষ্ট প্ৰমাণ আছে। সেই প্ৰাচীন বকদ্বীপ বা উপবঙ্গ সমতল তটভূমি বলিয়া সমতট আখ্যা পাইয়াছিল । খৃষ্টীয় চতুর্থ শতাব্দীতে সমুদ্রগুপ্তের তাম্রশাসনে সমতটের প্রথম উল্লেখ আছে। আরও অৰ্দ্ধশতাব্দী পরে যখন চৈনিক পরিব্রাজক ইৎসিং ভারতে আইসেন, তখন তিনি হর্ষভট্ট নামক একজন প্ৰবল প্ৰতাপান্বিত রাজাকে সমতট রাজত্ব করিতে দেখিয়া গিয়াছিলেন। ৬৩৯ খৃষ্টাব্দে হুয়েন সাঙ সমতট পরিদর্শন করেন। তঁহার বর্ণনা হইতে বুঝা যায় যে, সমুদ্রকুলবৰ্ত্তী সমস্ত উপবঙ্গ বা গঙ্গার বদ্বীপ সমতটের অন্তর্ভক্ত ছিল । * হুয়েন সাঙৰ সমতট সম্বন্ধে লিখিয়া গিয়াছেন যে, এই স্থানের ভূমি উর্বরা, লোকসকল ক্ষুদ্রাকৃতি কৃষ্ণকায় ও তীক্ষুবুদ্ধি। সমতটে ৩০টি সঙ্খারাম ও শতাধিক প্রাচীন হিন্দুমন্দির ছিল। ২০০০ বৌদ্ধশ্রমণ ও বহুসংখ্যক নিগ্ৰন্থ জৈন এ দেশে বাস করিতেন। চৈনিক সাধু এ দেশে বহু পণ্ডিতের সমাবেশ দেখিয়া বিস্মিত হইয়াছিলেন। তিনি বলিয়াছেন, সমতটের রাজধানীর পরিধি ৪ মাইল এবং উহা কামরূপ হইতে ১২৷১৩ শত লী বা ২০০ মাইল দক্ষিণে ও তাম্রলিপ্তি হইতে ৯০০ লী বা ১৫০ মাইল পূর্বে অবস্থিত। + কানিংহাম বহু বিবেচনা করিয়া এই প্ৰাচীন রাজধানী মুন্ডুলী বা যশোহরের সন্নিকটে নির্দেশ করেন। ৭ কিন্তু তাহার কি কোন চিহ্ন আছে ? এই সকল বিষয়ের আলোচনা করিতে গেলে স্বতঃই মনে হয়, এই ৩০টি বৌদ্ধ সঙ্খারাম কোথায় ছিল ? শুধু বৌদ্ধ ধৰ্ম্ম নহে, জৈন ধৰ্ম্মও বহু পূৰ্ব্ব হইতে বঙ্গদেশে যথেষ্ট প্রসার লাভ করিয়াছিল । জৈন গুরু মহাবীরের অন্য নাম বৰ্দ্ধমান । সম্ভবতঃ তঁাহা হইতে রাষ্ট্ৰীয় বৰ্দ্ধমান প্রদেশের নাম হয়। পুরাণাদির আলোচনা দ্বারা ইহাও জানিতে পারা যায় যে, জৈনদিগের ২৪ জন তীর্থঙ্করের মধ্যে ২৩ জনের সহিত বাঙ্গালীর সংশ্ৰব ঘটিয়াছিল। ; চন্দ্রগুপ্তের অধিকার কালে বঙ্গদেশে সৰ্ব্বত্র ব্ৰাহ্মণাচার এক প্রকার বিলুপ্ত হইয়াছিল, এবং সৰ্ব্বত্রই জৈন ধৰ্ম্মের প্রবল প্ৰতিপত্তি বিস্তৃত হইয়াছিল। কারণ, তিনি স্বয়ং জৈন ggs

  • Cunningham's Ancient Geography p 593. i Beal's Ruddhist Records pp. 199-20.

Julien’s IIiouen Thsang iii,8. Ancielt Geography pp. 5o J-2. ! विश्र काय, ४१० थo,-8०७ १ः ।