পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (চতুর্থ বর্ষ).pdf/৩০৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ef3, d R o অদৃষ্ট-চক্ৰ । २११' বা তাহারা উহা পাইবেন । রায় মহাশয়ের অবশিষ্ট সম্পত্তি র্তাহার তিন পুত্রের মধ্যে বাটোয়ারা হইবে। যতীশ একবার বিবরণটি পড়িল-তাহারপর আবার আদ্যপ্ত পাঠ কপিল । “উকিল সাহেব” হাসিয়া বলিলেন, “যতীশ বাবু, বিবরণটা মুখস্ত করিবেন। ब बन् ि? যতীশ বলিল, “জগৎপ্ৰসন্ন দেবরায়ের প্রথমা পত্নীর একমাত্র কন্যার যদি পুত্র থাকে, তবে সে কি এ সম্পত্তি পাইতে পারে ?” অব্যবসায়ীর অজ্ঞতায় একটু উপহাসের হাসি হাসিয়া “উকীল সাহেব।” दलिaाभ, ‘(ल-हैं उ मालिक ।” “তবে তাহাকে সে বিষয় প্রমাণ করিতে হইবে ?” “নিশ্চয় ।” “আমি জগৎপ্ৰসন্ন দেবরায়ের প্রথম পক্ষের কন্যার একমাত্র সন্তান ।” এ কথা এমনই অপ্রত্যাশিত যে কিছুক্ষণ সকলেই বিস্ময়াধিক্যে নিৰ্ব্বাক বুহিলেন। শেষে “ডাক্তার সাহেব” বিস্ময়ািবমুক্ত হইয়া --তাহারা জাগ্ৰত কি সুপ্ত বুঝিবার জন্য চুরুট টানাই সঙ্গত মনে করিয়া ভৃত্য শবদারকে চুরুট আনিতে বলিলেন। তখন “উকীল সাহেব৷” যতীশকে জিজ্ঞাসা করিলেন, “ব্যাপারটা কি ?” “ডাক্তার সাহেব” চুরুট ধরাইয়া লইলেন ; পোষ্টমাষ্টার বাবু চেয়ারে খাড়া হইয়া বসিলেন ; মাষ্টার মহাশয় একটু অবিশ্বাসের হাসি হাসিলেন, শ্লেষ্মা প্ৰধানধাতু শরৎ বাবুর নয়নেও বিস্ময় ফুটিয়া উঠিল। যতীশচন্দ্ৰ বলিল, “আমার মা অল্পবয়সেই মাতৃহীন। তাহার মাতার মৃত্যুর অল্পদিন পরেই তাহার পিতা জগৎপ্ৰসন্ন দেবরায় পুনরায় বিবাহ করেন। তাহার দ্বিতীয়া পত্নী সপত্নী-কন্যাকে “দেখিতে পারিতেন” না । ‘সতীন কাটা’ অনেকেই সহ্য করিতে চাহে না । বিশেষ এ ক্ষেত্রে সপত্নীর পিতৃগৃহের ঐশ্বৰ্য্য ও আপনার পিতৃগৃহের দারিদ্র্য তুলনা করিয়া তিনি সপত্নীর স্মৃতির প্রতিও অসম্মান প্ৰকাশ করিতে কুষ্ঠিত হইতেন না । মাতামহ তখন তরুণী রূপসী ভাৰ্য্যার করতলগত । তঁহারই চক্রে পিতার সহিত র্তাহার। সপত্নীকন্যার বিবাহ হয় ; নহিলে জগৎপ্ৰসন্নের কন্যার দরিদ্র ঘরের বধু হইবার DOK BBD BD DSSS DE KBD BBYDBS DDBDB DDS SDBDDB DgDDBBB DBB KBS DDD S KDD DBD DBS DBYESDDBDB DBD Vegeu