পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (চতুর্থ বর্ষ).pdf/৩৯৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


VEL, SORO I ` আনন্দ-বিদায়। ৩৫৯ টি বিকাশ, তাহার ‘সিংহল-বিজয়ে ইহার চরম পরিণতি। জীবনের প্রভাতে ষে সুর বাজিয়াছিল, জীবনের শেষ মুহুৰ্ত্ত পৰ্যন্ত সেই সুর রহিয়া রহিয়া ধ্বনিত হইয়াছিল। তাই তিনি বড় গলা করিয়া বলিতে পারিয়াছিলেন- । “এই দেশেতে জন্ম আমার, যেন এই দেশেতে মারি ” আবার, তিনি যে কেবল ‘জননী জন্মভূমি’কে ভাল বাসিতেন তাহা নহে, ‘জননী বঙ্গভাষা’কেও তিনি হৃদয়ের সহিত ভালবাসিতেন, বঙ্গীয় সাহিত্য-পরিষদের নবনিৰ্ম্মিত মন্দিরে গৃহ-প্ৰবেশ উপলক্ষে যে মহতী সভা আহুত হইয়াছিল, সেই সভায় গীত র্তাহার নব-রচিত গান ‘জননী বঙ্গভাষা” তাহার হৃদয়ের ঐকান্তিকতা ও সাহিত্য-সাধনার একনিষ্ঠতার পূর্ণ পরিচয় দেয়। আমরা কয়জন তাহার মত অকপটচিত্তে বলিতে পারি ?-- “চাহিনাক কিছু, তুমি মা আমার এই জানি, কিছু নাহি জানি আর ; তুমি গো জননী হৃদয় আমার, তুমি গো জননী আমার প্রাণ । জননি বঙ্গভাষা, এ জীবনে চাহি না অর্থ, চাহি না মান ; যদি তুমি দাও তোমার ও দুটি অমল কমল চরণে স্থান৷” আর এক কথা । তাহার স্বদেশ-প্ৰেম ‘বিফল রাষ্ট্রনৈতিক আন্দোলনে'র অন্ধকূপের মধ্যে আবদ্ধ ছিল না। সমাজের সর্বাঙ্গীণ কল্যাণ তঁহার উদ্দিষ্ট ছিল। প্ৰমাণ র্তাহার ব্যঙ্গ-সিদ্ধপময় বহু গান। শুধু দু’ দণ্ডের তরে লোককে হাসাইতে, আনন্দের তুফানে ভাসাইতে, তিনি হাস্য-রাসের অবতারণা করিতেন না। র্তাহার হাসি শূন্যগর্ভ হৃদয়ের উচ্চ অট্টহাস (The loud laugh that speaks the vacant mind) fgal কৃষ্ণনগরের রসিক কবি হইলেও তিনি গোপাল ভাড় ছিলেন না, ইংরাজীনবীশ হইলেও তিনি টমাস হুড বা মার্ক টোয়েনের অনুবাদ বা অনুকরণ করেন নাই। র্তাহার উদ্দেশ্য অতি উচ্চ, অতি মহৎ, অতি বিশুদ্ধ ছিল। গুপ্তকবির ন্যায়, তিনি হাসিতে হাসিতে শিক্ষা দিতে, সমাজ-শাসনের - জন্য ঠাট্টার চাবুক চালাইতে, সুদক্ষ ছিলেন। সে হাসির বিদ্যুচ্চমকের : সঙ্গে সঙ্গে করুণার বারিধারা ছিল, আর ছিল কঠোর বীজ, তাহা কপটাচারীর মস্তকে পাতিত হইত ও মিথ্যা, কপটতা ও ভণ্ডামি চূর্ণ-বিচূর্ণ করিত। ७ाड्ने ठिनि दलिशाgछ्न् 'Jक्र-कवेि यांवेि ?-दात्र कब्रि रूक्षू ? নিন্দা করি শুধু-সকলে ?