পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (চতুর্থ বর্ষ).pdf/৪৩০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Veff, >\9ra, उानिना । లిని 9

  • চাহ ? এই যে ঋষির ন্যায় রাজা অনিল, যাহার পক্ষ লইয়া তুমি আমার সঙ্গে যুদ্ধ করিলে, আমি ইহঁরই সেনাপতি রুদ্রসেনের পুত্ৰ অদীরণ ; ইহারই অল্পে পালিত, ইহঁরই যত্নে লালিত হইয়া আমি ইহঁকেই রাজ্যচু্যত করিয়াছি ; আর ইহঁর দেবীস্বরূপিণী কন্যা, র্যাহার রূপে মুগ্ধ হইয়াই আমি এই অধৰ্ম্মাচরণে প্ৰবৃত্ত হইয়াছিলাম, আর যিনি আজ তাহার পরমশক্রির প্রাণ ভিক্ষা চাহিতেছেন, তাহাকে এত দিন বলপূর্বক বিবাহ করি নাই কেন জান ? বলপ্রকাশে আমি তঁাহার হৃদয় পাইব না, তাই প্ৰতি বৎসর এইরূপ একটা কৃত্ৰিম যুদ্ধের অভিনয়ে নিজের বীরত্ব দেখাইয়া তাহার হৃদয় আমার দিকে আকৃষ্ট করিবার চেষ্টা করিতাম। যদি কৃতকাৰ্য্য না হইতাম, উনি যদি আর কাহারও প্ৰণয়ে আবদ্ধ হইতেন, তাহা হইলেও আমার আশা ছিল যে, আমার সেই প্ৰতিদ্বন্দ্বী নিশ্চয়ই আমার এই আহবানে আমার সহিত যুদ্ধ করিতে আসিবে ; আর আমি তখন অনিন্দ্যার সম্মুখে তাহাকে হত্যা করিয়া তাহাকে বলপূর্বক গ্ৰহণ করিতে পারিব। তাই আজ যখন তুমি তাহার পক্ষ হইতে আমার সঙ্গে যুদ্ধ করিতে আসিলে, তখন আমার মন আনন্দে নৃত্য করিয়া উঠিয়াছিল। কে জানিত, যে তুমি ভগবানের বিচারাদণ্ড আমার উপর নিক্ষেপ করিতে আসিয়াছ ? আজ আমার দর্প চূর্ণ হইয়াছে। হায়! আমার পাপের কি প্ৰায়শ্চিত্ত আছে?” অনুতপ্ত পাতকীর নয়ন বাষ্পপূর্ণ হইয়া আসিল ; সে আর কথা কহিতে পারিল না ।

গিরণ ইতঃপূর্বেই তাহাকে ছাড়িয়া দিয়াছিলেন। তাহাকে চুপ করিতে দেখিয়া তিনি বলিলেন,-“তুমি যাহাঁদের সর্বস্ব অপহরণ করিয়া দুৰ্গতির একশেষ করিয়াছিলে, আজ তাহদেরই কৃপায় তোমার প্রাণ-রক্ষা হইল । আত্মীকৃত পাপের জন্য অনুতাপেই তোমার প্রায়শ্চিত্ত আরব্ধ হইয়াছে। এখন তুমি রাজা আনিলকে তাহার রাজ্য ফিরাইয়া দাও। আর র্তাহার ও অনিন্দ্যার নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করিয়া অবশিষ্ট জীবন পরিহিতব্ৰতে উৎসর্গ কর । এ রাজ্যে আর তুমি থাকিতে পাইবে না। তুমি রাজা ধৰ্ম্মপালের রাজ্যে আশ্রয় ভিক্ষা কর । তঁহাকে তোমার জীবনের ইতিহাস বলিবে, আর তোমার এই অত্যাচারের প্রায়শ্চিত্তস্বরূপ র্তাহার অধীনে অত্যাচারীর দমনে আপনাকে নিয়োজিত করিবে ।’’ অদীরণ স্বীকৃত হইল। সে জানু পাতিয়া অনিল ও অনিন্দ্যার নিকট 4.