পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (চতুর্থ বর্ষ).pdf/৫৯১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


es virtiérrí (ré-tsé "KINři মাইয়া সুখ হইবে না।” এই বলিয়া সে অনিন্দ্যার অভিমুখে দুই এক পদ अवनद्ध श्रेण। অনিন্দৰ্য্যা আপনার বিপদ বুঝিতে পারিলেন ; বিপদে রমণীর একমাত্র সহায় স্বামীর দিকে একবার চাহিলেন। এত গোলমাল কোলাহলেও তাহার নিদ্ৰাভঙ্গ হইতেছে না কেন ? - তবে কি সত্য সত্যই তিনি মহানিদ্রায় মায় হইয়াছেন? না তাহা হইবে কেন ? তাহার গাত্র ত তাপহীন হইয়া शांश नारे ? দসু্যুপতিকে অগ্রসর হইতে দেখিয়া তিনি কাতর কণ্ঠে তাহাকে বলিলেন, “আমার স্বামী যতক্ষণ না আমাকে আমার করিতে বলিবেন, ততক্ষণ আমি জলস্পর্শ করিব না।” । “আমার কাছে ওসব ওজর খাটিবে না” বলিয়া দস্ম্য বলপূর্বক আনি, SDBB DDB DB BB DBDSS BDBDBD DD DBBD DBDBS কোন উপায় নাই দেখিয়া চীৎকার করিয়া কঁদিয়া উঠলেন। গিরণ শুইয়া শুইয়া সমস্ত ব্যাপার বুঝিতে পারিতেছিলেন। কিন্তু তাহার উঠবার সামর্ঘ্য ছিল না। শেষে যখন তিনি পত্নীর ক্ৰন্দন শুনিলেন, তখন এক প্রবল চেষ্টায় দৌর্বল্য ও জড়তাকে দূর করিয়া তিনি উঠিয়া বসিলেন ; এবং নিমেষের মধ্যে কোশ হইতে তরবারি নিষ্কাশিত করিয়া দসু্যপতির মন্তক স্কক্ষচ্যুত করিলেন ; এবং দসু্যাগণের প্রতি ধাবিত হইলেন। যাহাকে তাহারা মৃত বলিয়া মনে করিয়াছিল, সেই মৃত ব্যক্তি দলপতিকে হত্যা করিয়া তাহদের দিকে আসিতেছে দেখিয়া তাহারা মৃত শরীরে প্ৰেতআর আবির্ভাব হইয়াছে স্থির করিল ; এবং ভয়ে বিহবল হইয়া উন্মত্তের ন্যায় যে যে স্থানে পারিল পলাইল। অনেকে তাহার অন্ত্রাঘাতে ভূমিশয্যায় শয়ন ষোড়শ পরিচ্ছেদ। সতীর আনন্দ ।

  • - পুরী শত্ৰুশূন্ত হইয়াছে দেখিয়া গিরণ ধীরে ধীরে পঞ্জীর কাছে আসিলেন, এবং সস্নেহে তাহার দক্ষিণ হস্ত স্বীয় হস্তদ্বয়ের মধ্যে ধারণ করিয়া, বলিলেন, “প্রিয়ে, তোমার এই নরাধম স্বামীকে কি তুমি ক্ষমা করিবে ? হায়! আমার