পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (চতুর্থ বর্ষ).pdf/৭৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৈশাখ, ১৩২০ ৷৷ পুরাতন প্রসঙ্গ। ’ độ সূক্ষ্মবিবেচনা প্রয়োগ পূর্বক মনুবচনদ্বয়ের এইরূপ অৰ্থ স্থির করিলেন যে, ধৰ্ম্ম কৰ্ম্মের জন্য স্বজাতীয় পত্নীর একান্ত আবশ্যক ; কিন্তু ইন্দ্ৰিয় চরিতার্থ করিবার জন্য স্বজাতীয় পত্নী হইতেই পারে না, ভিন্নজাতীয় পত্নী চাহি । কিন্তু মনু প্ৰতিলোম-বিবাহের একান্ত বিদ্বেষী ছিলেন ; অতএব তিনি অনুলো মরীতিতেই ভিন্নজাতীয় পত্নীর ব্যবস্থা করিয়া গিয়াছেন । বহু বিবাহসম্বন্ধে বিদ্যাসাগরের যুক্তি এই ছিল যে, যখন মনুর মতে কাম্যবিবাহ ভিন্নজাতীয় কন্যা ব্যতীত হইতেই পারে না, এবং যখন কলিতে জাত্যন্তরবিবাহ উঠিয়া গিয়াছে, তখন কলিতে বহুবিবাহ অবশ্যই অশাস্ত্রীয় হইতেছে। “বিদ্যাসাগর মহাশয়ের এই ব্যাখ্যা বিলক্ষণ সূক্ষ্মদৰ্শিতার দ্বারা উদ্ভাবিত হইয়াছে। বিশেষ প্ৰণিধানের সহিত বচন দুইটির পর্য্যালোচনা করিয়া BBBDB BDDD0 BDDDB BBBLL SBD D BBS DDDDB DDBBD D DBBBDD SDS তবে একটা গোল এই থাকে যে, শূদ্রের পক্ষে কি কাম্যবিবাহ ঘটবে না ? BBB DDDD DBDB BD DBBD DDD DDD S gBED BDBDD BB BDBBBBDB আপন অপেক্ষা ছোট জাতির কন্যার সহিতই শাস্ত্রানুমোদিত । যাহা হউক, বিদ্যাসাগরের মুখে শুনিয়াছি, তারানাথ তাহার ঐ ব্যাখ্যা শুনিয়া বড়ই সন্তুষ্ট হইয়াছিলেন এবং আদর করিয়া বলিয়াছিলেন,-“আমাদের ঢ়িপলে না হোলে এমন সূক্ষ্ম ব্যাখ্যা কে বার কাবুতে পারে ?” বিদ্যাসাগরের গ্যাটা গোটা খৰ্ব্ববাকৃতি দেহ ছিল ; এই জন্য তারানাথ প্রভূতি কয়েকজন তাহার সমসাময়িক এবং তঁাহার অপেক্ষা কিঞ্চিৎ উচ্চ শ্রেণীস্থ সংস্কৃত কলেজের ছাত্র আদর করিয়া তাহাকে ‘ঢ়িপলে’ বলিয়া ডাকিতেন। তর্কবাচস্পতি মহাশয়ের মুখে এই আদরের ডাকনাম আমি অনেকবার শুনিয়াছি। “বিদ্যাসাগরের বহুবিবাহবিষয়ক প্ৰস্তাব মুদ্রিত হইল। কিছুদিন পরে দেখিলাম তারানাথ উহার প্রতিবাদ করিয়া পুস্তক লিখিলেন। অগত্যা বিদ্যাসাগর বাদানুবাদে প্ৰবৃত্ত হইলেন । তারানাথের যে প্ৰকার সর্বসংগ্ৰাহী শাস্ত্ৰজ্ঞান ছিল তাহাতে কোনও একটি সিদ্ধান্তে স্থায়িভাবে উপনীত হওয়া DDBB KBDSB BDDDD BB DB LSDBDD BBDBDS BBDDB DD প্রতিকুল মুক্তিসকল সম্পূর্ণরূপে দেখিতে পাইতেন। দুই প্রকারের যুক্তিই তাহার চক্ষুর উপরে সর্বদা জাজ্বল্যমান থাকিত। সকল দেশের শাস্ত্ৰেই gKD gBSDBDD BBD DBBDB D gB BDBD BDDDD DDD S DBDB Positive Science Woffs ayoffs, certifs, የiቫ†ቔfኛሻ፲] প্রভৃতি *忆召