পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (চতুর্থ বর্ষ).pdf/৮৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বৈশাখ, ১৩২০ ৷৷ आङिा-जब्लिका । १७ অতি শীতল মলয়ানিল মন্দমধুর বহু না।, शबि देवभूौ शभांत्रि अत्र भजनानाल प्रश् ना কোকিলাকুল কুৰ্ব্বতি কল, অলিঝঙ্কার কুসুমে হরিলালসে প্ৰাণ তেজব, পাওব। আর জনমে। তখন শ্রোতার মনে যে অপূৰ্ব ভাবের সঞ্চার হয়, শিরায় শিরায় যে ভাবের প্রবাহ ছুটে তাহাতেই উপলব্ধি হয় যে, এই বহুশত বর্ষের eKD KBD gEDD SBBDD BDDSSYSDBDD gLDDSS BDS S BBDS প্ৰসাদের গানগুলি অনেক স্থলে দুৰ্বোধ্য হইলেও প্ৰাণবন্ত ; কারণ উহা ভক্তের ভক্তিমন্দাকিনী হইতে সুত হইয়া বাহির হইয়াছে, তাই উহা BDD S DDLDD DDDBD KDBB DB DLL BDBD DBBDBL BDDBB 例卒闷乙颈一 ন্যাংটা মেয়ের এত আদর জটে ব্যাটা তো বাড়ালে নৈলে কেন এমন করে সাধতে হবে মা মা বলে। প্রভৃতি গানে রচয়িতার কৌশল, প্ৰাণের স্পন্দনও অনুভূত হয়, কিন্তু তথাপি DBDDBDB BBD DBDBS BDBBS DBBBYS S S DBDBDDB SLlK KDD DDBDS ভাবে। ভাষা যেরূপই হউক না কেন, উহাতে ভাব যদি সম্যক প্রতিফলিত হয়, তাহা হইলেই উহাতে প্ৰাণ পদাৰ্থ আপনিই সংক্রমিভ হইবে। তাহার জন্য চাষার খামারে, ঘুরিয়া বেড়াইতে হইবে না। BDLLEDS DDBDBD Lg S DB BDB DBD BB KBD OOBKS DDDS সম্পদে সম্পদশালী হইয়া উঠে। ঐ সকল শব্দকে সাধুভাষায় উন্নতী করা নিতান্তই আবশ্যক। নতুবা ভাষার দীনতা ঘুচিবে না। গুরুচণ্ডালী দোষের বহরটা একটু কমাইতে হইবে। দুর্ভাগ্যক্রমে অনেক চলিত শব্দ সাধু ভাষায় উন্নীত হইয়াও অভিধানে আপাঙক্তেয় হইয়া আছে। অভিধানকারদিগের ইহা একটা প্ৰবল দোষ। ঐ সকল শব্দকে একঘরে করিয়া রাখাতে বিভিন্ন অঞ্চলের লেকের পক্ষে ঐ সকল শব্দের অর্থবোধ কঠিন হইয়া পড়িতেছে। সরকার মহাশয় অভিধানকারাদিগকে যদি কিছু বলিতেন, তাহা হইলে বঙ্গভাষার বিশেষ উপকার হইত। ཞིགfགེ་ཅུས་ཤ ལྷg༢༡if Tis། །