পাতা:আর্য্যাবর্ত্ত (তৃতীয় বর্ষ).pdf/১৩৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8 እb” ब्धीjादी । ৩য় বর্ষ--২য় সংখ্যা । হোতাধিবৰ্ব্বাস্তথোদগীতা হয়েন সমযোজয়ন মহিষ্য পরিবৃত্ত্যাথি বাবাতামপর্যাং তথা ৷ व्यानि । • 8 || ७१ “পরে হোতা অধ্যবৰ্দ্ধা ও উদগাতারা দশরথের মহিষী এবং বৈশ্বপজাতীয়া পত্নী ও শূদ্র জাতীয়া পত্নীকে সেই অশ্বের সহিত সংযুক্ত করিলেন।” এই ব্যাপারটা মহাভারতে একেবারেই নাই । ইহাতে রীতিনীতির যে কতকটা পরিবর্তন সূচনা করিতেছে, তাহা অস্বীকার করিবার উপায় নাই। পরে দুই গ্রন্থেই ঐ যজ্ঞের অন্যান্য পদ্ধতিগুলি ঠিক এক রূপই বৰ্ণিত হইয়াছে। যে সময় পবন-নন্দন লঙ্কার সকল স্থানে সীতাকে অন্বেষণ করিয়া অশোক বনে উপনীত হইয়াছিলেন, সেই সময় তথায় সুনিৰ্ম্মল নদী দেখিয়া তিনি মনে করিয়াছিলেন ;- সন্ধ্যাকালামনাঃ হ্যামা ধ্রুবমেষ্যতি জানকী । নদীঞ্চেমাং শুভ জলাং সন্ধ্যার্থে বরবর্ণিনী ৷ St S < 8 8s যদি সেই বরবর্ণিনী। শ্যামা জানকী সন্ধ্যা করিবার সময় উপস্থিত হইয়াছে ইহা বুঝিতে পারেন, তাহা হইলে তিনি নিশ্চিতই সন্ধ্যা করিবার জন্য এই শুভজিলা নদীতে আগমন করিবেন । ইহাতে বুঝা যায়, তদানীন্তন দ্বিজাতি রমণীরা ত্রিসন্ধ্যা করিতেন। ঐ শ্লোকের দুই স্থানে সন্ধ্যা কথা রহিয়াছে। সন্ধ্যার সাধারণ লক্ষণে যোগী যাজ্ঞবল্ক্য বলিয়াছেন ত্ৰিয়াণাঞ্চৈব বেদানাং ব্ৰহ্মদীনাং সমাগমঃ সন্ধি সর্ববসুরাণাঞ্চ তেন সন্ধ্যা প্ৰকীৰ্ত্তিতা ॥ ব্যাস বলিয়াছেন ;- Κ গায়ত্রী নাম পূৰ্ব্বাহে সাবিত্রী মধ্যমে দিনে । সরস্বতী চ সায়াহ্নে সৈব সন্ধ্যা ত্ৰিষু স্মৃত ৷ তৈত্তিরীয় ব্ৰাহ্মণে লিখিত আছে * * * * “বাক্ষ্যমান প্রকারেণ প্ৰণায়ামাদিকং কুৰ্ব্বন যথোক্ত নামরূপোপেতং সন্ধ্যা শব্দস্য বাচ্যমাদিত্যং ব্রহ্মেতি ধ্যায়ন” ইত্যাদি। ইহাতে বুঝা যাইতেছে যে, গায়ত্রীসম্বলিত প্ৰণায়ামাদি পূর্বক দ্বিজাতির উপাসনাই সন্ধ্যৗ শব্দের বাচ্য। আর সন্ধা অর্থে যদি কেবল দেবতার উপাসনাই বুঝাইবে, তাহা হইলে তাহার কালাকাল বিবেচনা